টি-টোয়েন্টিতে এক ম্যাচে একই ব্যাটসম্যানের দুবার ডাক!

টি-টোয়েন্টিতে এক ম্যাচে একই ব্যাটসম্যানের দুবার ডাক!

স্পোর্টস ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৯:১৮ ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

ক্রিকেটে একজন ব্যাটসম্যান সাধারনত একবারই ব্যাট করার সুযোগ পান। শূন্য রানে আউট হলে ক্রিকেটে সেটিকে ডাক হিসেবে অভিহিত করা হয়। দুবার ব্যাট করার সুযোগ না থাকায় একদিনের ম্যাচে সর্বোচ্চ একবারই ডাক মারতে পারেন ব্যাটসম্যানরা। তবে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে কখনো কখনো এক ম্যাচেই দেখা গেছে দুটি ডাকের ঘটনা!

সীমিত ওভারের ক্রিকেটে এক ম্যাচে একই ব্যাটসম্যানের দুটি ডাকের ঘটনা রীতিমতো দুর্লভ। তবে রোববার রাতে আইপিএলের ম্যাচে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব বনাম দিল্লি ক্যাপিটালস ম্যাচে এমন একটি ঘটনার সাক্ষী হয়েছেন ক্রিকেটভক্তরা। দুই বার ব্যাট করতে নামলেও রানের খাতা খুলতে পারেননি পাঞ্জাবের নিকোলাস পুরান। তবে এই ক্যারিবীয় ব্যাটসম্যানই এমন ঘটনার ক্ষেত্রে প্রথম নন। তার আগে এই কাজ করেছেন ময়জেজ হেনরিকস আর শোয়েব মালিকও। 

সাধারণত খেলা টাই হলে সেটা সুপার ওভারে গড়ালেই একজন ব্যাটসম্যান দুইবার ব্যাটিং করার সুযোগ পান। গতকাল দিল্লী-পাঞ্জাবের ম্যাচ সুপার ওভারে গড়ালে তাই দ্বিতীয়বার ব্যাটিংয়ের সুযোগ পান পুরান। 

এর আগে ১৫৮ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নামা পাঞ্জাবের হয়ে চার নম্বরে ব্যাটিংয়ে নেমেছিলেন পুরান। স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিনের বলে বোল্ড হয়ে কোনো রান না করেই সাজঘরে ফেরত যান তিনি। পরে সুপার ওভারে লোকেশ রাহুলের সঙ্গে ব্যাট করতে নামেন এই ক্যারিবীয় ক্রিকেটার। এবার রাবাদার বলে রানের খাতা খোলার আগেই বোল্ড হয়ে যান তিনি। 

এর আগে এমন ঘটনা দেখা গিয়েছিল ২০১৪ সালের বিগ ব্যাশে। সেবার পার্থ স্কর্চার্স ও সিডনি সিক্সার্সের ম্যাচে দুইবারই ০ রানে আউট হয়েছিলেন অজি ক্রিকেটার ময়জেজ হেনরিকস। প্রথমে ব্যাট করে ৫ উইকেটে ১৫৩ রান করেছিল স্কর্চার্স।

১৫৪ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে মাত্র ২০ রানেই ৪ উইকেট হারায় সিক্সার্স। সে ম্যাচে সিডনির হয়ে তিন নম্বরে ব্যাটিংয়ে নামা হেনরিকস কোনো রান না করে পেসার জেসন বেহেনড্রফের বলে আউট হয়েছিলেন।

পরে স্টিভ স্মিথের ৬৫ রানের ইনিংসে ভর করে ঘুরে দাঁড়ায় সিডনি সিক্সার্স। শেষ পর্যন্ত ২০ ওভার শেষে স্কর্চার্সের সমান ১৫৩ রান করেই থামে তারা।

সুপার ওভারে আবারো সিক্সার্সের হয়ে ব্যাটিংয়ে নামেন স্মিথ ও হেনরিকস। ডানহাতি পেসার ইয়াসির আরাফাতের করা ঐ ওভারের প্রথম বলে বোল্ড হয়ে যান স্মিথ। অন্যদিকে ওভারের চতুর্থ বলে ক্রেইগ সিমন্সের হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হন হেনরিকস। দুইবার ব্যাটিংয়ে নামলেও তার নামের পাশে ছিল না কোনো রান।

ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ততম সংস্করণে এক ম্যাচে একই ব্যাটসম্যানের দুবার ডাক মারার ঘটনা প্রথম ঘটে ২০১৩ সালে। সেবার পাকিস্তানের ঘরোয়া টুর্নামেন্ট রমাদান টি-২০ কাপের ফাইনাল ম্যাচে পাকিস্তানের তারকা ক্রিকেটার শোয়েব মালিকের এই অভিজ্ঞতা হয়েছিল।

করাচিতে অনুষ্ঠিত এই ম্যাচে হাবিব ব্যাংক লিমিটেডের মুখোমুখি হয়েছিল পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্স। প্রথমে ব্যাটিং করে ১৫৮ রান করে হাবিব ব্যাংক।

পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্সের হয়ে ওপেন করতে নেমে প্রথম ওভারেই শূন্য রানে আউট হয়ে যান মালিক। এরপর ফয়সাল ইকবাল ও সরফরাজ আহমেদের দারুণ ব্যাটিংয়ের সুবাদে ম্যাচটি টাই হয়।

সুপার ওভারে আবারো ব্যাটিংয়ে নামেন মালিক। কিন্তু এবারো রান করার আগে ইমরান ফরহাতের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে আউট হন তিনি। ম্যাচটিতে দুইবারই তাকে আউট করেন ফাহাদ মাসুদ।

অবশ্য আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সীমিত ওভারের কোনো ম্যাচে এখনো এক ব্যাটসম্যানের দুবার শূন্য রানে আউট হওয়ার ঘটনা ঘটেনি।

ডেইলি বাংলাদেশ/এএল