জাফলংয়ে ঝরনার সৌন্দর্য নষ্ট করলো যুবক, তাকিয়ে দেখলো সবাই

জাফলংয়ে ঝরনার সৌন্দর্য নষ্ট করলো যুবক, তাকিয়ে দেখলো সবাই

সোশ্যাল মিডিয়া ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৯:০১ ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২০  

জাফলংয়ে ঝরনার সৌন্দর্য নষ্ট করছে কিছু সংখ্যক ‘অতিথি পর্যটক’। ছবি: ফেসবুক থেকে নেয়া

জাফলংয়ে ঝরনার সৌন্দর্য নষ্ট করছে কিছু সংখ্যক ‘অতিথি পর্যটক’। ছবি: ফেসবুক থেকে নেয়া

জাফলংয়ের সংগ্রামপুঞ্জির আরেক নাম মায়াবী ঝরনা। সাদা শাড়ি সদৃশ্য ঝরনা আর সবুজ প্রকৃতির জন্য এরইমধ্যে ভ্রমণপিপাসুদের কাছে এটি বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। এ এক শান্তির পরশ, অপরূপ সৌন্দর্যে মুগ্ধ হওয়ার মতোই জায়গা! কিন্তু এই সৌন্দর্য নষ্ট করছে কিছু সংখ্যক ‘মৌসুমি পর্যটক’।

সম্প্রতি এক পর্যটক অ্যারোসল স্প্রে পেইন্ট ব্যবহার করে সংগ্রামপুঞ্জির সবচেয়ে বড় পাথরে লিখেছেন ‘আর+আই’। এমকি বড় করে একটি লাভ সাইনও এঁকেছে। এতে ঝরনার সৌন্দর্য নষ্ট হয়েছে বলে মনে করছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা।

বিষয়টি নিয়ে ট্রাভেলার্স অব বাংলাদেশসহ বেশ কয়েকটি ফেসবুক গ্রুপে তুমুল সমালোচনা হচ্ছে। এর মধ্যে মাহিম নামের একজন লিখেছেন, ঝরনার ঠিক মাঝামাঝি জায়গাতে বড় পাথরটা উনি নষ্ট করেছেন। এখন এই ঝরনাতে তাকালেই সবার প্রথমে এই দৃশ্যটাই চোখে পড়ে। এমনকি স্প্রেটিও ফেলে এসেছেন সেখানে। এতোগুলো মানুষের সামনে উনি এ কাজ করলেন, অথচ কেউ প্রতিবাদ করলো না।

অ্যারোসল স্প্রে পেইন্ট ব্যবহার করেছেন এই পর্যটক। ছবি: ফেসবুক থেকে নেয়া

জাফলংয়ের জল-পাথর আর সবুজের স্বর্গরাজ্য দেখতে প্রতিদিনই ভিড় জমান হাজারও পর্যটক। পর্যটন স্পটের বেহাল দশার পাশাপাশি অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা না থাকার কারণে হতাশ হতে হয় তাদের। অনেকের মতে, পর্যটকদের সচেতনতার পাশাপাশি পর্যটন স্পটে নজরদারি ও সুযোগ-সুবিধা বাড়াতে উদ্যোগ প্রয়োজন।

জাফলং জিরো পয়েন্ট থেকে মাত্র ১৫ থেকে ২০ মিনিটেই সংগ্রামপুঞ্জি ঝরনায় যাওয়া যায়। পাহাড়ের গা বেয়ে ঝরনার পানি জমে পুকুরের মতো সৃষ্টি হয়েছে। এই ঝরনার রয়েছে মোট তিনটি ধাপ। প্রতি ধাপেই রয়েছে মুগ্ধতা। কিন্তু পর্যটকদের অসচেতনায় দিন দিন সৌন্দর্য হারাতে বসেছে ঝরনাটি।

ডেইলি বাংলাদেশ/এনকে