নেপচুনের ঝকঝকে ছবি জেমস ওয়েবের ক্যামেরায়, ধরা পড়ল বরফ দৈত্য

নেপচুনের ঝকঝকে ছবি জেমস ওয়েবের ক্যামেরায়, ধরা পড়ল বরফ দৈত্য

বিজ্ঞান ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:৪১ ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

ঝকঝকে বরফ দৈত্যের ছবি তুললো জেমস ওয়েব স্পেস টেলিস্কোপ। এক কথায় জেমস ওয়েব একের পর এক কামাল দেখিয়ে যাচ্ছে। মহাকাশের নানান রহস্য উঠে আসছে তার ক্যামেরায়। সূর্য থেকে পৃথিবীর যত দূরে রয়েছে তার থেকেও তিন গুণ দূরে রয়েছে নেপচুন। আর সেই নেপচুনের স্পষ্ট ছবি ধরা পড়েছে জেমস ওয়েবের ক্যামেরায়।

বলা হচ্ছে, প্রায় ৩৩ বছর পর সৌরজগতের শেষ গ্রহ নেপচুনের বলয়ের অসাধারণ ছবি মানুষের সামনে এলো। এই ছবি দেখলে যে কেউ তাজ্জব হয়ে যাবেন। গত ৩০ বছরে সৌরজগতের শেষ গ্রহটির এত পরিষ্কার ছবি দেখতে পাওয়া যায়নি।

নাসার জেমস ওয়েব টেলিস্কোপ নেপচুনের প্রায় একগুচ্ছ ছবি তুলে পাঠিয়েছে। এই ছবিগুলোকে কেন্দ্র করে মহাকাশ বিজ্ঞানীদের কাছে নতুন কৌতূহল তৈরি হয়েছে। পৃথিবী থেকে নেপচুনের দূরত্ব প্রায় ৪৩০ কোটি কিলোমিটার। এই গ্রহটি পুরো বরফের চাদরে মোড়া। জেমস ওয়েবের ক্যামেরায় তোলা ছবিগুলোতে স্পষ্টভাবে নেপচুনের বলয়গুলো ফুটে উঠেছে।

অনেক আগে থেকেই নেপচুনের বলয় সম্পর্কে বিজ্ঞানী মহল গবেষণা চালাচ্ছিল। কিন্তু উপযুক্ত প্রযুক্তির অভাবে এই গ্রহের চারদিকে থাকা বলয় ভালোভাবে পর্যবেক্ষণ করা যায়নি। সর্বশেষ নেপচুন গ্রহের ছবি দেখা গিয়েছিল ১৯৮৯ সালে। নাসার ভয়েজার টু মহাকাশযান সেই ছবি তুলেছিল। তবে সেই ছবি ছিল খুবই অস্পষ্ট। তবে বর্তমানে পাওয়া পরিষ্কার নেপচুনের বলয়ের ছবি গবেষণার নানান কাজে সাহায্য করবে বলে মনে করছেন বিজ্ঞানীরা।

সৌরজগতের অন্ধকারময় অঞ্চলে এক কোণে আপন কক্ষপথে ঘোরে এই গ্রহ। সেখানে সূর্যের আলো খুব কম পরিমাণে পৌঁছায়। নেপচুনের ভর দুপুর অনেকটা পৃথিবীর গোধূলির সমান। যেহেতু নেপচুন একটি বিশাল তুষারের গোলা, তাই অনেকে একে বরফ দৈত্য বলেন। বরফের চাদরে মোড়া এই গ্রহকে মহাকাশ থেকে গাঢ় বেগুনি রঙের দেখায়। কখনো বা এর গায়ে এক প্রকার নীলচে আভা দেখা যায়।

ডেইলি বাংলাদেশ/এনকে