মাওয়া ঘাটে নেই সেই চিরচেনা রূপ, ব্যস্ত পদ্মাসেতু

মাওয়া ঘাটে নেই সেই চিরচেনা রূপ, ব্যস্ত পদ্মাসেতু

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৩:১৫ ২৬ জুন ২০২২  

(ছবি: সংগৃহীত)

(ছবি: সংগৃহীত)

ব্যস্ত মাওয়া ঘাট এখন অলস হয়ে পড়ে আছে। নেই তার সেই চিরচেনা রূপ। নেই কুলিদের হাঁকডাক। কানে আসছে না আর ফেরির ছুটে চলার হুইসেল।

ব্যস্ত মাওয়া ঘাট এখন অতীত! অথচ এই ঘাট সকাল কী সন্ধ্যা ২৪ ঘণ্টাই জনাকীর্ণ থাকত। দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হতো যানবাহনের সারি। ক্লান্ত চোখগুলো জেগে থাকত লঞ্চ বা ফেরির অপেক্ষায়।

মাওয়া ঘাটে যাত্রীর অপেক্ষায় বসেছিলেন অটোরিকশাচালক রাকিব। কোনো যাত্রী না পাওয়ায় হতাশ। তিনি জানান, অন্যদিন বসে থাকা লাগত না। সবসময়ই যাত্রীদের আনাগোনা থাকত। পদ্মাসেতু খুলে দেওয়ায় আজ কোনো যাত্রী নেই। যাত্রী নেই, এখন কী করবেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, কী আর করা; অন্য কোনো রুটে চালাব।

ঘাটের রেস্টুরেন্টে নেই কোনো কাস্টমার। তবুও খরিদ্দারের আশায় দোকান খুলে আছেন তারা। লঞ্চঘাটে ভিড়লেই কে কার আগে কাস্টোমার বাগাতে পারে, সেই প্রতিযোগিতা চলতো। আজ তার কিছুই নেই। অলস বসে থাকা রুস্তম নামে এক রেস্টুরেন্ট ম্যানেজার বলেন, আমাদের দিন শেষ হতে চললো। আগের সেই জৌলুস আর থাকবে না। তবে, সন্ধ্যার পর হয়তো পর্যটকদের ভিড় বাড়তে পারে।

উল্লেখ্য, গতকাল শনিবার (২৫ জুন) বহুল আকাঙ্ক্ষিত স্বপ্নের পদ্মাসেতু উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে মুহূর্তেই অবসান হয়েছে দীর্ঘ ভোগান্তি আর যানজটের। প্রাধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এক আড়ম্বর অনুষ্ঠানের মাধ্যমে উদ্বোধন করেন দেশের বৃহত্তম এবং পৃথিবীর অন্যতম দীর্ঘ এই সেতুটি।

অনেক মূল্যে পাওয়া পদ্মাসেতু এখন উৎসবমুখর। পূর্বপরিকল্পনা অনুযায়ী, রোববার (২৬ জুন) সকাল ৬টায় যানবাহন চলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হয়। গাড়িগুলো ভোর রাত থেকেই জমা হতে থাকে পদ্মা সেতুর টোল প্লাজায়।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম