বগুড়ায় কালবৈশাখীর তাণ্ডব, পুরো জেলা বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন

বগুড়ায় কালবৈশাখীর তাণ্ডব, পুরো জেলা বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন

বগুড়া প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ০৩:৫৭ ৩০ এপ্রিল ২০২২   আপডেট: ০৩:৫৯ ৩০ এপ্রিল ২০২২

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

বগুড়ায় কালবৈশাখী ঝড়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। শুক্রবার দিবাগত রাত সোয়া তিনটা পর্যন্ত ঝড়ের কবলে পড়ে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে আছে পুরো জেলা। 

এর আগে, রাত পৌনে ১০টা থেকে বগুড়ায় কালবৈশাখী ঝড়ের তাণ্ডব শুরু হয়। প্রায় ঘণ্টাব্যাপী চলে এ তাণ্ডব। ঝড়ে শহরসহ জেলার বিভিন্ন স্থানে গাছ উপড়ে গেছে। এমনকি রেললাইনে গাছ উপড়ে পড়ায় ট্রেন চলাচলও ছিল বন্ধ।

এছাড়াও বেশকিছু স্থানে বিদ্যুতের খুঁটি ভেঙে তার ছিঁড়ে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে আছে পুরো জেলা। 

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ঝড়ে বগুড়ার  শিবগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের বাড়ি-ঘর তছনছ  হয়ে গেছে। উঁড়ে  গেছে ঘরের চাল। বৈদ্যুতিক খুঁটির ওপর গাছ উপড়ে পড়ে ছিঁড়ে গেছে তার। বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে আছে পুরো উপজেলা।

এছাড়া শিলাবৃষ্টির ফলে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এছাড়াও ফসলি জমি পানিতে নিমজ্জিত হয়ে আছে।

দুপচাঁচিয়া, শেরপুর ও সোনাতলাসহ অন্যান্য উপজেলাতেও কালবৈশাখী ঝড়ে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। বিদ্যুৎবিহীন অবস্থায় রয়েছে বাকি উপজেলাগুলোও। বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন এ জেলায় আলো ফিরিয়ে আনতে কাজ করছে পাঁচটি ইউনিট।

নর্দান ইলেকট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানি লিমিটেড (নেসকো) বগুড়া-১ এর অভিযোগ কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা জহুরুল ইসলাম জানান, বিদ্যুৎ সংযোগ মেরামতে বগুড়া শহরে তাদের পাঁচটি বিশেষ ইউনিট কাজ করছে। 

এদিকে প্রচণ্ড ঝড়ে সোনাতলা উপজেলায় রেললাইনের ওপরে তিনটি গাছ পড়ায় ট্রেন আটকা পড়ে। প্রায় ৪০ মিনিট পর গাছ সরিয়ে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক করা হয়। এসময় সময় সান্তাহারগামী করতোয়া এক্সপ্রেস ট্রেন আটকা পড়ে।

এই ট্রেনটি রাত সাড়ে ১০ টার দিকে আটকা পড়ে। পরবর্তীতে রাত ১১ টা ১০ মিনিটে ট্রেনটি সান্তাহারের উদ্দেশ্যে রওনা দেয় বলে জানান বগুড়া রেলওয়ের স্টেশন মাস্টার সাজেদুর রহমান সাজু।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআরকে