সক্ষমতা অর্জনে বেসরকারি খাতকেও এগিয়ে আসতে হবে: বাণিজ্যমন্ত্রী

সক্ষমতা অর্জনে বেসরকারি খাতকেও এগিয়ে আসতে হবে: বাণিজ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৪:৩৬ ১৮ এপ্রিল ২০২২   আপডেট: ২১:২০ ১৮ এপ্রিল ২০২২

রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের পর্যটন ভবনে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় আয়োজিত এক কর্মশালার সমাপনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি- ছবি: সংগৃহীত

রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের পর্যটন ভবনে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় আয়োজিত এক কর্মশালার সমাপনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি- ছবি: সংগৃহীত

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, বিশ্ববাণিজ্যে সক্ষমতা অর্জনে সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি খাতকেও সমান তালে এগিয়ে আসতে হবে।

রোববার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের পর্যটন ভবনে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় আয়োজিত এক কর্মশালার সমাপনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ ২০২৬ সালে এলডিসি থেকে উত্তরণ লাভ করবে। এটা একদিকে আমাদের জন্য খুশির খবর, অপরদিকে চ্যালেঞ্জের। আসন্ন চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার জন্য আমাদের তৈরি হতে হবে। কাজ করতে হবে গভীরভাবে। বুঝে ও জেনে সামনে এগিয়ে যেতে হবে। এ চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার জন্য অভিজ্ঞতা প্রয়োজন। অভিজ্ঞতা ও দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে আমাদের এ চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে হবে। 

এলডিসি গ্রাজুয়েশনের পর অনেক বাণিজ্য সুবিধা থাকবে না উল্লেখ করে তিনি বলেন, উন্নত বিশ্বের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করে বাংলাদেশকে এগিয়ে যেতে হবে।

মন্ত্রী বলেন, ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন আমাদের জিএসপি প্লাস বাণিজ্য সুবিধা দিলেও অনেক শর্ত পূরণ করতে হবে। বাণিজ্য সুবিধা আদায় করতে পিটিএ বা এফটিএ এর মতো বাণিজ্য চুক্তি করতে হবে। এজন্য সাময়িকভাবে কিছু শুল্ক হারালেও দীর্ঘ মেয়াদে আমরা লাভবান হবো।

টিপু মুনশি বলেন, উন্নত বিশ্বের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করে টিকতে হলে যোগ্য ও দক্ষ মানুষ গড়ে তুলতে হবে। বিদেশি দক্ষ জনশক্তির উপর নির্ভর করলে চলবে না।

তিনি বলেন, আমাদের কাজ আমাদেরই দক্ষতার সঙ্গে করতে হবে। যোগ্য ও দক্ষ মানুষগুলোকে কাজে লাগিয়ে দক্ষ জনশক্তি তৈরি করতে হবে। আমাদের সক্ষমতা অর্জনের বিকল্প নেই। এলডিসি’র চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়ে তৈরি হতে হবে।

অন্যদের মধ্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব তপন কান্তি ঘোষ, পরিকল্পনা কমিশনের কৃষি, পানিসম্পদ ও পল্লী প্রতিষ্ঠান বিভাগের সদস্য (সচিব) শরিফা খান এবং এফবিসিসিআই’র প্রেসিডেন্ট মো. জসিম উদ্দিন অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআরকে/এইচএন/জেডআর