সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত সেই অজয়ের পরিবারের পাশে নোবিপ্রবি

সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত সেই অজয়ের পরিবারের পাশে নোবিপ্রবি

নোবিপ্রবি প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১২:২৭ ৬ এপ্রিল ২০২২  

অজয়ের মা পাপিয়া মজুমদারের হাতে এই চেক তুলে দেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. দিদার-উল-আলম। 

অজয়ের মা পাপিয়া মজুমদারের হাতে এই চেক তুলে দেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. দিদার-উল-আলম। 

সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) ইনফরমেশন সায়েন্স অ্যান্ড লাইব্রেরি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের শিক্ষার্থী অজয় মজুমদারের পরিবারকে পাঁচ লাখ টাকার আর্থিক সহায়তা চেক প্রদান করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। 

মঙ্গলবার (৫ এপ্রিল) সকালে নিজ কার্যালয়ে অজয়ের মা পাপিয়া মজুমদারের হাতে এই চেক তুলে দেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. দিদার-উল-আলম। 

এ সময় অন্যদের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. আব্দুল বাকী, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. ফারুক উদ্দিন, প্রক্টর অধ্যাপক ড. নেওয়াজ মোহাম্মদ বাহাদুর, ইন্সটিটিউট অব ইনফরমেশন সায়েন্সের পরিচালক ড. ফিরোজ আহমেদ, ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডীন ড. এএসএম মাহবুবুর রহমান, ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা বিভাগের পরিচালক বিপ্লব মল্লিক, রেজিস্ট্রার (অ. দা.) মোহাম্মদ জসীম উদ্দিন, অর্থ ও হিসাব পরিচালক মোহাম্মদ সাইদুর রহমানসহ শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন।

এ ব্যাপারে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. দিদার-উল-আলম  বলেন, অজয়ের ক্ষতিপূরণ আমরা কোনোদিন দিতে পারবো না। তার মৃত্যুতে তার পরিবারের যে ক্ষতি হয়েছে তা অপূরণীয়। আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে তার পরিবারকে পাঁচ লাখ টাকা অনুদান দিলাম। আশা করি তার পরিবার এই অর্থ দিয়ে ঘুরে দাঁড়াতে পারবে। ভবিষ্যতেও যদি তার পরিবারের কোনোপ্রকার সহযোগিতার প্রয়োজন হয় তাহলে আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করলে আমরা সাধ্যমতো চেষ্টা করব। দোয়া করি সৃষ্টিকর্তা অজয়কে স্বর্গবাসী করুক।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ৭ ডিসেম্বর নোয়াখালী সদর উপজেলার সোনাপুর জিরো পয়েন্ট এলাকায় ট্রাকচাপায় মারা যান অজয় মজুমদার। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের তৃতীয়বর্ষের ছাত্র ছিলেন। সুবর্ণচর উপজেলার চরবাটা ইউনিয়নের বাদল চন্দ্র মজুমদার ও পাপিয়া মজুমদার দম্পতির ছেলে তিনি।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম