ভারতে বিশালাকার ‘রহস্যময়’ পাথরের পাত্রের সন্ধান

ভারতে বিশালাকার ‘রহস্যময়’ পাথরের পাত্রের সন্ধান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৭:২২ ৩১ মার্চ ২০২২   আপডেট: ১৭:২২ ৩১ মার্চ ২০২২

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

ভারতে বিশালাকৃতির পাথরের পাত্রের খোঁজ পেয়েছেন গবেষকেরা। ধারণা করা হচ্ছে প্রাচীনকালে মানুষ সমাহিত করতে এসব পাত্র ব্যবহার করা হয়ে থাকতে পারে। উত্তরপূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য আসামের চারটি স্থানে ছড়িয়ে থাকা অবস্থায় ৬৫টি বেলেপাথরের পাত্র পাওয়া গেছে।

পাত্রগুলোর ধরন এবং আকারে পার্থক্য রয়েছে। কিছু পাত্র লম্বা, কিছু নলাকৃতির। অনেকগুলো আংশিক বা সম্পূর্ণভাবে মাটিতে পোঁতা অবস্থায় পাওয়া গেছে। ইন্দোনেশিয়া এবং লাওসে আগেও এই ধরনের পাথরের পাত্র পাওয়া গেছে।

ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার তিনটি বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা এসব পাত্র খুঁজে পাওয়ার গবেষণায় যুক্ত ছিলেন। এই সপ্তাহে গবেষণাটি জার্নাল অব এশিয়ান আর্কিওলোজি-তে প্রকাশ হয়েছে। গবেষণাটির নেতৃত্ব দিয়েছেন নর্থ-ইস্টার্ন হিল ইউনিভার্সিটির তিলক ঠাকুরিয়া এবং গৌহাটি ইউনিভার্সিটির উত্তম বাথারিয়া।

গবেষণা দলের অংশ ছিলেন অস্ট্রেলিয়ান ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির গবেষক নিকোলাস স্কোপাল। তিনি বলেন, আমরা এখনো জানি না কারা এসব বিশালাকৃতির পাত্র বানিয়েছে কিংবা তারা কোথায় বসবাস করতেন। এর সবকিছুই রহস্যময়।

আরো পড়ুন: হারানো লাগেজ উদ্ধারে বিমান সংস্থার ওয়েবসাইট হ্যাক যুবকের

বিশালাকৃতির এসব পাত্র কোন কাজে ব্যবহার হতো তাও এখনও জানা যায়নি। তবে গবেষকদের বিশ্বাস এগুলোর সঙ্গে সম্ভবত মানুষের শেষকৃত্যের আচারের সঙ্গে সম্পর্ক ছিল।

নিকোলাস স্কোপাল বলেন, নাগা জনগোষ্ঠীর (উত্তর-পূর্ব ভারতের নৃতাত্ত্বিক গ্রুপ) মধ্যে আসামে পাত্রের মধ্যে দাহ করা অবশেষ, জপমালা অন্যান্য প্রত্ন সামগ্রি পাওয়ার গল্প চালু আছে।

ড. তিলক ঠাকুরিয়া বলেন, বর্তমানে এসব পাত্র খালি রয়েছে এবং এক সময় এগুলোতে ঢাকনা থাকার সম্ভাবনা রয়েছে। তিনি বলেন, এই প্রকল্পের পরবর্তী ধাপ হলো পাত্রগুলো তুলে ফেলা এবং এর বৈশিষ্ট্য নথিভুক্ত করা।

গবেষকরা বলছেন, অতীতে আসাম এবং প্রতিবেশি মেঘালয় রাজ্যেও এই ধরনের পাত্র পাওয়া গেছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএএইচ