সবচেয়ে বড় আন্তমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার দাবি উত্তর কোরিয়ার

সবচেয়ে বড় আন্তমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার দাবি উত্তর কোরিয়ার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৮:৫১ ২৫ মার্চ ২০২২   আপডেট: ১৮:৫৪ ২৫ মার্চ ২০২২

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

উত্তর কোরিয়া দাবি করেছে, এযাবৎকালের সবচেয়ে বড় আন্তঃমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্রের (আইসিএমবি) সফল পরীক্ষা চালানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৪ মার্চ) এই পরীক্ষা চালানো হয়। ২০১৭ সালের পর প্রথমবারের মতো নিষিদ্ধ আইসিএমবি’র পরীক্ষা চালালো দেশটি।

আইসিএমবি মূলত দীর্ঘপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র। এটি যুক্তরাষ্ট্র পর্যন্ত পৌঁছাতে সক্ষম। এই ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা উত্তর কোরিয়ার জন্য নিষিদ্ধ। অতীতে এই ধরনের পরীক্ষার জন্য তাদের ওপর ব্যাপক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়।

রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন সরাসরি এই পরীক্ষার নির্দেশনা দেন। তাদের দাবি এই অস্ত্র পারমাণবিক হামলা মোকাবিলা করতে সক্ষম।

হাওয়াসং-১৭ নামের ক্ষেপণাস্ত্রটি প্রথম উন্মুক্ত করা হয় ২০২০ সালের এক সামরিক প্রদর্শনীতে। সেখানে বিশালাকার এই অস্ত্র দেখে অবাক হয়ে যায় দেশটির অস্ত্র সম্পর্কে অবগত ঝানু বিশেষজ্ঞরাও।

আরো পড়ুন>> একমাসে দু’বার গর্ভধারণ, বিরল ঘটনার জন্ম দিলেন তুর্কি নারী!

বৃহস্পতিবারের পরীক্ষাটি শনাক্ত করে জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়া। জাপানের কর্মকর্তারা জানান, এটি এক ঘণ্টার বেশি সময় ধরে উড়ে এক হাজার একশ’ কিলোমিটার দূরে জাপানের জলসীমায় পড়ে।

উত্তর কোরিয়ার এই পরীক্ষার নিন্দা জানিয়েছে জাতিসংঘ। জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া এবং যুক্তরাষ্ট্রও এই পরীক্ষার নিন্দা জানিয়েছে।

জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস বলেছেন, এই পরীক্ষার মাধ্যমে এই অঞ্চলের উত্তেজনা ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পাবে।

আরো পড়ুন>> বেসামরিকদের ওপর প্রাণঘাতী হামলার নির্দেশ ছিল মিয়ানমারের জান্তা প্রধানের

ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার পর রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনকে উদ্ধৃত করে জানিয়েছে, তার দেশ মার্কিন সাম্রাজ্যবাদের বিরুদ্ধে দীর্ঘ মেয়াদী সংঘাতের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে।

চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে সাতবার ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালায় উত্তর কোরিয়া। এক মাসে সর্বোচ্চসংখ্যকবার উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালানোর ঘটনাগুলোর মধ্যে এটি একটি।

এর আগে ২০১৯ সালে এক মাসে সর্বোচ্চসংখ্যকবার ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়েছিল দেশটি। উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উনের সঙ্গে তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আলোচনা ভেস্তে গেলে একাধিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালায় পিয়ংইয়ং। উত্তর কোরিয়া ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের শত্রুতাপূর্ণ নীতিকে দায়ী করে আসছে।

সূত্র: বিবিসি

ডেইলি বাংলাদেশ/মাহাদী