বিয়ের পরদিন বাবার বাড়িতে তরুণী, সপ্তাহ না যেতেই আত্মহত্যা

বিয়ের পরদিন বাবার বাড়িতে তরুণী, সপ্তাহ না যেতেই আত্মহত্যা

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১০:৩৭ ১৩ জানুয়ারি ২০২২  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

চুয়াডাঙ্গায় বিয়ের এক সপ্তাহ পর ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন শ্রাবণী আক্তার লাবণী নামে ১৯ বছর বয়সী এক তরুণী।

বুধবার সকাল ৯টার দিকে নিজ বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। শ্রাবণী চুয়াডাঙ্গা পৌর শহরের বাজার পাড়ার ইসাহক আলীর মেয়ে। এক সপ্তাহ আগে কুষ্টিয়ার হালসা গ্রামের আলিমুজ্জামানের ছেলে সোহানুজ্জামান সোহানের সঙ্গে শ্রাবণীর পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়।

স্বজনরা জানান, এক ছেলের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক থাকায় বিয়ের একদিনের মাথায় বাবার বাড়িতে চলে আসেন শ্রাবণী। এ নিয়ে বাবা-মায়ের সঙ্গে শ্রাবণীর মনোমালিন্য হয়। এ কারণে বুধবার সকালে বাবার বাড়িতে সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসিন বলেন, কোনো অভিযোগ না থাকায় মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় সদর থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

এর আগে, ৩১ ডিসেম্বর রাত ৯টার দিকে টর্চলাইট চার্জ দেওয়ার সময় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন ফরজ আলীর স্ত্রী আলেয়া খাতুন। পরে পরিবারের সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয়ার পথেই তিনি মারা যান।

নবগঠিত গড়াইটুপি ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য আক্কাস আলী বলেন, ১১ দিন আগে ফরজ আলীর স্ত্রী বিদ্যুৎস্পৃষ্টে মারা গেছেন। মঙ্গলবার বিকেলে সড়ক দুর্ঘটনায় ফরজ আলীও মারা যান। এটা আসলেই মেনে নেয়া কষ্টকর। বুধবার সকাল ১০টায় জানাজা শেষে নেহালপুর দক্ষিণপাড়া কবরস্থানে স্ত্রীর কবরের পাশেই তাকে দাফন করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, তাদের সংসারে দুই মেয়ে ও এক ছেলে রয়েছে। ছেলে অষ্টম শ্রেণির ছাত্র। কয়েকদিনের ব্যবধানে একটি পরিবারে পরপর দুটি মৃত্যুর ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর