বিশ্বে মর্যাদাশীল রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠিত হয়েছে: তথ্যমন্ত্রী

বিশ্বে মর্যাদাশীল রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠিত হয়েছে: তথ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৫:৪২ ১০ জানুয়ারি ২০২২   আপডেট: ১৯:৫০ ১০ জানুয়ারি ২০২২

সাংবাদিকেদের সঙ্গে আলাপকালে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

সাংবাদিকেদের সঙ্গে আলাপকালে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ বিশ্বে একটি মর্যাদাশীল রাষ্ট্র হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। 

সোমবার বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে সাংবাদিকদের একথা বলেন তিনি। 

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের আজ ৫০ বছর পূর্তি। প্রকৃতপক্ষে ১৯৭১ সালে ১৬ ডিসেম্বর আমরা  স্বাধীনতা অর্জন করলেও আমাদের স্বাধীনতা পূর্ণতা পেয়েছিল ’৭২ সালের ১০ জানুয়ারিতে। এই দিনে স্বাধীনতার স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু হাজার বছরের ঘুমন্ত বাঙালিকে স্বাধীনতার মন্ত্রে উজ্জীবিত করেছিলেন। এই দিনে যার নেতৃত্বে আমাদের স্বাধীনতা সংগ্রাম ও  স্বাধীনতা অর্জন সেই মহানায়ক ফিরে এসেছিলেন। সেদিনই আমাদের স্বাধীনতা পূর্ণতা পেয়েছে।

আরো পড়ুন: বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের মাধ্যমে স্বাধীনতা পূর্ণতা পায়: নৌপ্রতিমন্ত্রী

আওয়ামী লীগের এই যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের ৫০ বছর পূর্তিতে বঙ্গবন্ধুর পবিত্র আত্মা নিশ্চয়ই শান্তি পাচ্ছে এই জন্যে যে, আজ বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নপূরণের পথে বাংলাদেশ বহুদূর এগিয়ে গেছে। বাংলাদেশ এখন মধ্যম আয় ও খাদ্য উদ্বৃত্তের দেশে উন্নীত হয়েছে। বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ পৃথিবীর সামনে একটি মর্যাদাশীল রাষ্ট্র হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

কিন্তু এখনো বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশে স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তি আস্ফালন করে উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপি তাদের দোসর স্বাধীনতাবিরোধী জামায়াতের সঙ্গে জোটে এখনো আছে। তারা এখনো আমাদের স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব, উন্নয়ন ও অগ্রগতির বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে। সুতরাং দেশকে আরো এগিয়ে নিয়ে যেতে হলে এই অপশক্তির বিনাশ প্রয়োজন।

ডেইলি বাংলাদেশ/জাআ/জেডআর/আরএইচ/এমএস