‘সরকারি চাকরিজীবী’ পাত্র না পেয়ে তরুণীর আত্মহত্যা!

‘সরকারি চাকরিজীবী’ পাত্র না পেয়ে তরুণীর আত্মহত্যা!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:৫৭ ১ জানুয়ারি ২০২২   আপডেট: ১৭:০০ ১ জানুয়ারি ২০২২

ছবি: প্রতীকী

ছবি: প্রতীকী

পছন্দ অনুযায়ী সরকারি চাকরিজীবী পাত্র না পেয়ে এক তরুণী গলায় ফাঁস লাগিয়ে ‘আত্মহত্যা’ করেছে। সম্প্রতি ভারতের মুর্শিদাবাদের কান্দির খড়গ্রাম এলাকার গুরুটিয়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনায় পুরোগ্রামে নেমে এসেছে শোকের ছায়া।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম থেকে জানা যায়, ২৬ বছরের তরুণী শিল্পী ঘোষের বিয়ের কথা চলছিল অনেক দিন থেকেই। সরকারি চাকরিজীবী পাত্র খোঁজা হচ্ছিল তার পরিবার থেকে।

বহু পাত্রপক্ষই এসেছিল শিল্পীকে দেখতে তার বাড়িতে। বিয়ের জন্য অনেক পাত্র রাজিও ছিল। কিন্তু শিল্পী ঘোষ ও তার পরিবার সরকারি চাকরিজীবী পাত্র খুঁজছিল। এ জন্য একের পর এক বিয়ের সম্বন্ধ বাতিল করেন। এসব ঘটনার জন্য মানসিক অশান্তিতে ছিলেন শিল্পী এমনটায় জানায় তার পরিবার।

বৃহস্পতিবার (৩০ ডিসেম্বর) নিজের বাড়িতেই গলায় দড়ি দেন তিনি। শিল্পীর পরিবারের সদস্যরা ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করেন শিল্পীর মরদেহ। তাকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

খড়গ্রাম থানার পুলিশ শিল্পীর মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কান্দি মহকুমা হাসপাতালে পাঠায়। পরিবারের একমাত্র মেয়েকে হারিয়ে শোকে পাথর হয়ে গেছেন শিল্পীর মা-বাবা। অনেকে প্রশ্ন তুলেছেন শুধু বিয়ের জন্য আত্মহত্যা করেছেন এমন নাও হতে পারে। পুলিশ এরইমধ্যে তদন্ত শুরু করেছে।

এদিকে বড় ভাইয়ের একমাত্র মেয়ের মৃত্যুতে হতবাক শিল্পীর চাচা সঞ্জীব মণ্ডল। তিনি বলেন, স্নাতক স্তরের পড়াশোনা শেষ করার পর থেকেই শিল্পীর জন্য পাত্রের খোঁজ করছিলেন তার ভাই। তবে জায়গা-জমি, টাকাপয়সা রয়েছে এমন পাত্রদের দেখা হলেও সরকারি চাকুরিজীবী পাত্র ছাড়া বিয়েতে রাজি হয়নি শিল্পী।

এই ঘটনায় শোকাহত শিল্পীর গ্রামের বাসিন্দা চন্দন ঘোষও। তার দাবি কোনো প্রেমঘটিত সম্পর্ক ছিল না শিল্পীর। তিনি বলেন, শিল্পী আমার বোনের মতো ছিল। গ্রামের সকলে ওকে একডাকে ভালো মেয়ে বলে চেনে। ওর বিরুদ্ধে গ্রামের কারো কোনো অনুযোগ পর্যন্ত নেই। অনেক দিন ধরে পর পর বিয়ের জন্য দেখাশোনা চললেও সরকারি পাত্র ছাড়া বিয়ে করতে রাজি হয়নি শিল্পী।

সূত্র: জি নিউজ

ডেইলি বাংলাদেশ/মাহাদী