লঞ্চে আগুন: এখনো ৫১ জনের খোঁজ পেতে প্রতীক্ষায় স্বজনরা

লঞ্চে আগুন: এখনো ৫১ জনের খোঁজ পেতে প্রতীক্ষায় স্বজনরা

ঝালকাঠি প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১০:২১ ২৭ ডিসেম্বর ২০২১   আপডেট: ১০:২৪ ২৭ ডিসেম্বর ২০২১

(ছবি: সংগৃহীত)

(ছবি: সংগৃহীত)

ঝালকাঠিতে লঞ্চ দুর্ঘটনায় ৫১ জন নিখোঁজের তালিকা তৈরি করেছে যুব রেডক্রিসেন্ট সোসাইটি। গত দুইদিনেও খোঁজ পাওয়া যায়নি এমন লোকজনের স্বজনদের সঙ্গে কথা বলে এই তালিকা করেছে তারা। নিখোঁজ ব্যক্তিদের জীবিত অবস্থায় পাওয়া না গেলেও অন্তত মরদেহ নিয়ে বাড়ি ফিরতে চান তাদের স্বজনরা।

এমভি অভিযান-১০ লঞ্চে অগ্নিকাণ্ডের সময় নদীতে ঝাঁপ দিয়ে নিখোঁজ হয়েছেন অনেক যাত্রী, এমন ধারণা স্বজনদের। ঝালকাঠির সুগন্ধা নদীর তীরে সেই নিখোঁজ যাত্রীদের খুঁজে বেড়াচ্ছেন অনেকেই।

যুব রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির পক্ষ থেকে বলা হয়, নদী তীরে দুইদিন ধরে নিখোঁজ মানুষের সন্ধানে আসা স্বজনদের পাশে দাঁড়িয়েছে যুব রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির শতাধিক কর্মী। তাদের সঙ্গে কথা বলে এখন পর্যন্ত ৫১ জনের নামের তালিকা তৈরি করা হয়েছে, যারা এখনও নিখোঁজ রয়েছেন।

যুব রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির যুবপ্রধান মশিউর রহমান শাহিন বলেন, আমরা দুইদিন ধরে সুগন্ধা নদীর তীরে বরগুনা থেকে আসা স্বজন হারানো মানুষের সঙ্গে কথা বলে এ তালিকা তৈরি করেছি। পূর্ণাঙ্গ তালিকা করার পরে জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

আরো পড়ুন: পিকআপের ধাক্কায় সড়কে ঝরল ৩ জনের প্রাণ

যুব রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির তালিকা অনুযায়ী নিখোঁজ যাদের নাম পাওয়া গেছে তারা হলেন, বরগুনার বড়লভগোলা গ্রামের হাকিম শরীফ, পাখি বেগম, নাসিরুল্লাহ, তালতলি উপজেলার নলিমাঠা গ্রামের ইদ্র্রিস, সদর উপজেলা পরীখাল গ্রামের রাজিয়া সুলতানা, নুসরাত জাহান, মির্জাগঞ্জ উপজেলার কিসমত, শ্রীনগর গ্রামের জাহানারা বেগম, বামনা উপজেলার লক্ষ্মিপুরা বুকাবুনিয়া গ্রামের স্বপ্নিল চন্দ্র হাওলাদার, সদরের আমতলী সড়কের আবদুল হক, নাহরমান গ্রামের হেনারা, ইব্রাহিম, এনামুল, ঢাকা দক্ষিণ সিটির বাসিন্দা তাছলিমা আক্তার, সুমাইয়া আক্তার মিম, সুমনা আক্তার তানিসা, জোনায়েদ ইসলাম, বরগুনা সদরের মাহিন সরদার, রিমু, মুত্তাসিন, বেতাগী উপজেলার বুড়ামজুমদার গ্রামের রিনা বেগম, নুসরাত আক্তার লিনা, কুমারখালী গ্রামের মোতাসিম, বামনা উপজেলা ভোলাঘাট গ্রামের মো. হামিদ, বরগুনা সদরের নিলুফা, বামনা উপজেলার বুকাবুনিয়া গ্রামের কৃষ্ণ প্রসাদ, কাশিপুর চৌমাথার আরিফ মৃধা, কুলসুম, পাথরঘাটা উপজেলার চরদুয়ানি গ্রামের পপি, বরগুনা সদরের রিমু, জীবন, ঢাকার উত্তর মাদারটেক সবুজবাগ এলাকার মনোয়ারা বেগম, ঝুমা আক্তার, অহনা, জীবন, ইমন, বরগুনা সদরের রুমা, অহনা, পাথরঘাটার আবাচ্ছুম, বেতাগী উপজেলার গাবতলী গ্রামের মাহিমা, বরগুনা সদরের ইমন, তাছলিমা বেগম, তানিসা, মিম, শারমিন বেগম, আব্দুল্লাহ, আছিয়া, ডলুয়া গ্রামের মনোয়ারা বেগম, ছোটবগি ইউনিয়নের রেখা বেগম, জুনায়েদ, পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জের রিনা, লিমা।

এদিকে ঝালকাঠি জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে ৪১ জনের একটি তালিকা তৈরি করা হয়েছে। তবে দুটি তালিকায় নিখোঁজদের নামের মিল রয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে ঢাকা থেকে বরগুনার উদ্দেশে যাওয়া এমভি অভিযান-১০ নামের লঞ্চটিতে অগ্নিকাণ্ড ঘটে। এতে এখন পর্যন্ত ৩৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন ৭০ জনের বেশি।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম