একটি বিমান দুর্ঘটনা, ৪৯ জনের সঙ্গে প্রথম নারী পাইলট কানিজ ফাতেমা নিহত

একটি বিমান দুর্ঘটনা, ৪৯ জনের সঙ্গে প্রথম নারী পাইলট কানিজ ফাতেমা নিহত

ফিচার ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১২:১০ ৫ আগস্ট ২০২১   আপডেট: ১২:১০ ৫ আগস্ট ২০২১

সৈয়দা কানিজ ফাতেমা রোকসানা

সৈয়দা কানিজ ফাতেমা রোকসানা

বাংলাদেশের প্রথম নারী বৈমানিক সৈয়দা কানিজ ফাতেমা রোকসানা। বাংলার ইতিহাসের এক গর্বের নাম। তিনি বাংলাদেশের অফিশিয়ালি নারী বৈমানিক বা পাইলট হিসেবে বিবেচিত। অনেকের কাছে হয়তো নতুন বা জানেন না। তিনি ক্যাপ্টেন পদাধিকারী ছিলেন। ১৯৭৭ সালে তিনি বাণিজ্যিক বিমান পরিচালনার সনদ লাভ করেন।

সৈয়দা কানিজ ফাতেমা রোকসানা বাংলাদেশের সরকারি বিমান সংস্থা বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স-এর প্রথম নারী বৈমানিক ছিলেন এবং উনাকেই বাংলাদেশের প্রথম নারী বৈমানিক হিসেবে ধরা হয়।

উনার জীবনী নিয়ে তেমন লেখালেখি না থাকার কারন উনি খুবই অল্প সময় এই পৃথিবীর আলো দেখেছিলেন যার কারনে ইতিহাস থেকে হারিয়ে যাচ্ছে। ১৯৮৪ সালের ৪ আগস্ট তিনি বন্দরনগরী চট্টগ্রাম থেকে ফকার এফ-২৭ বিমানে করে ঢাকা বিমানবন্দরে অবতরণের সময় বৃষ্টিবিঘ্নিত আবহাওয়ার কারনে বিমান দুর্ঘটনার শিকার হয়ে নিহত হন। S2-ABJ হিসাবে নিবন্ধিত ফকার এফ২৭-৬০০ নামের উড়োজাহাজটি ১৯৭১ সালে তৈরি করা হয়েছিল। এটি প্রথমে ভারতীয় এয়ারলাইন্সের জন্য চালনা করা হয় কিন্তু বাংলাদেশের স্বাধীনতা পর ভারত সরকার থেকে বাংলাদেশকে দেওয়া সহযোগিতার একটি অংশ হিসাবে, এটি ১৯৭২ সালে বাংলাদেশ বিমানকে দেয়া হয়।

বাংলাদেশের ইতিহাসে যে কয়টা ভয়ংকর বিমান দূর্ঘটনা রয়েছে তার মধ্যে এটি অন্যতম। ৪৫ জন যাত্রীসহ ৪জন ক্রু সদস্য নিহত হন। এই দূর্ঘটনায় নিহতদের মধ্যে একজন ব্রিটিশ নাগরিক, একজন জাপানী এবং ৩৩জন মধ্যপ্রাচ্য থেকে আগত বাংলাদেশী ছিলেন।চট্টগ্রাম থেকে ঢাকায় আগত অভ্যন্তরীণ এই ফ্লাইটটি অত্যধিক বৃষ্টিপাতের কারণে দুইবার অবতরণের চেষ্টা করেও রানওয়ে খুজে পেতে ব্যার্থ হয়, তৃতীয়বার অবতরণের চেষ্টার সময় বিমানটি রানওয়ে থেকে ৫০০ মিটার আগেই এক জলাভূমিতে পতিত হয়ে বিধ্বস্ত হয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/কেএসকে