তিন বছরের শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যা, সৎ বাবার দায় স্বীকার 

তিন বছরের শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যা, সৎ বাবার দায় স্বীকার 

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২২:৩৬ ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

ছবি: প্রতীকী

ছবি: প্রতীকী

রাজধানীর বনানী কড়াইল বস্তিতে তানজিনা নামে তিন বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যা মামলায় সৎ বাবা মো. মহিউদ্দিন আদালতে দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছেন।

রোববার ঢাকা মহানগর হাকিম মাসুদুর রহমানের আদালত আসামির জবানবন্দি রেকর্ড করেন।

এদিন আসামিকে আদালতে হাজির করা হয়। এ সময় আসামি স্বেচ্ছায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে সম্মত হন। এরপর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বনানী থানার উপপরিদর্শক দেলোয়ার হোসেন ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় আসামির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি রেকর্ড করার আবেদন করেন। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত আসামির জবানবন্দি রেকর্ড করেন। তারপর তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

মামলার সূত্রে জানা যায়, তানজিলার মা জরিনা বেগমের সঙ্গে মোবাইলে পরিচয় হয় মহিউদ্দিনের। এরপর তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। কিছুদিন আগে জরিনা আগের স্বামীকে তালাক দিয়ে মহিউদ্দিনকে বিয়ে করেন। মেয়ে তানজিলা ছাড়া জরিনার আরো দুই ছেলে তার বাবার বাড়িতে থাকে। ১০/১২ দিন ধরে মহিউদ্দিন ও জরিনা তানজিলাকে নিয়ে কড়াইল বস্তিতে একটি ভাড়া বাসায় থাকা শুরু করে। এখানে আসার পর থেকেই তাদের মধ্যে ঝগড়াঝাটি লেগেই থাকতো। মহিউদ্দিন প্রায়ই স্ত্রীকে মারধর করতেন। এ জন্য গতকাল শনিবার সকালে জরিনা রাগ করে তার মেয়েকে রেখে মাদারীপুরের বোনের বাড়ি চলে যান। এরপর মহিউদ্দিন তার সৎ মেয়ের ওপর পাশবিক নির্যাতন চালায়। তার গালে কামড় দেয়। এক পর্যায়ে তানজিলাকে ধর্ষণ করে। এতে করে শিশুটির অবস্থা খারাপ হয়। পরে সে নিজেই তানজিলাকে নিয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আসে। সেখানে চিকিৎসকরা তানজিলাকে পরীক্ষা করে বুঝতে পারেন তাকে ধর্ষণ করা হয়েছে। পরে চিকিৎসকরা পুলিশকে জানায়। এরপর হাসপাতাল থেকে মহিউদ্দিনকে গ্রেফতর করে পুলিশ। এ ঘটনায় শিশুটির মা জরিনা বেগম বাদী হয়ে বনানী থানায় একটি মামলা করেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএইচ