ময়মনসিংহে ছোট বোনকে হত্যার পর টয়লেটে লুকিয়ে রাখল বড় বোন

ময়মনসিংহে ছোট বোনকে হত্যার পর টয়লেটে লুকিয়ে রাখল বড় বোন

নান্দাইল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২০:০৭ ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে দুই বছর বয়সী বোনকে কুপিয়ে হত্যার পর লাশ টয়লেটে লুকিয়ে রাখার অভিযোগ উঠেছে বড় বোনের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত লাকি আক্তারকে আটক করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ওই উপজেলার সদর ইউনিয়নের চর হোসেনপুরে এ ঘটনা ঘটে। নিহত জান্নাতুল ফেরদৌসী ওই গ্রামের অটোচালক মো. শহিদুল ইসলামের মেয়ে।

স্থানীয়রা জানায়, শহীদুল ইসলামের চার মেয়ে ও এক ছেলে। বড় দুই মেয়ে ও এক ছেলে বাইরে থাকে। লাকি ও জান্নাতুল ফেরদৌসী বাড়িতেই থাকতো। দুপুরে ছোট মেয়েকে ঘুম পাড়িয়ে পাশের বাড়িতে যান মা। বিকেলে বাড়ি ফিরে দুই মেয়ের কাউকেই দেখতে পান না। খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে বড় মেয়ে লাকিকে প্রতিবেশীর বাড়িতে পেয়ে ছোট মেয়ের কথা জিজ্ঞেস করেন। এরপর সে বাড়ির টয়লেটে বালতির মধ্যে কাপড় দিয়ে ঢেকে রাখা অবস্থায় ছোট বোনের ক্ষত-বিক্ষত লাশ দেখিয়ে দেয়।

ঈশ্বরগঞ্জ থানার ওসি মো. আবদুল কাদের মিয়া বলেন, বিকেলে নিহত জান্নাতুল ফেরদৌসীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য শুক্রবার মর্গে পাঠানো হবে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত লাকি আক্তারকে আটক করা হয়েছে। এ বিষয়ে আইনি প্রক্রিয়া চলমান।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর