অবহেলায় নবজাতকের মৃত্যু, ওষুধ আনার কথা বলে পালালেন নার্স

অবহেলায় নবজাতকের মৃত্যু, ওষুধ আনার কথা বলে পালালেন নার্স

ফেনী ও সোনাগাজী প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৯:২৫ ২৬ জুলাই ২০২০   আপডেট: ০৭:২৬ ২৭ জুলাই ২০২০

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

ফেনীর সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের রেখা পাল নামে এক নার্সের অবহেলায় প্রসবের সময় নবজাতকের মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

মৃত নবজাতকের বাবা রাশেদ আলমের অভিযোগ, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নার্সিং সুপারভাইজার রেখা পাল তাদের এক প্রকার জিম্মি করে সন্তান প্রসব করাতে বাধ্য করায় তার সন্তানের মৃত্যু হয়েছে।

নবজাতকের বাবা জানান, শনিবার সকালে তার স্ত্রী জেসমিন আক্তারের প্রসব যন্ত্রণা শুরু হলে তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসেন। এরপর হাসপাতালের জান্নাতুল ফেরদৌস নামে একজন মিডওয়াইফের সঙ্গে কথা বলেন। তিনি তার স্ত্রীকে প্রসবের কক্ষে নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেন। এ সময় নার্সিং সুপারভাইজার রেখা পাল ওই কক্ষে প্রবেশ করে মিডওয়াইফকে ভৎসনা করে বের করে দেন।

তিনি আরো জানান, তার স্ত্রীকে চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া রেখা নিজেই ব্যথা কমার জন্য ইনজেকশন ও ওষুধ দিয়ে বলেন, নবজাতকের সবকিছু ঠিক আছে। এখানে নবজাতকের প্রসব করাতে হলে তাকে আট হাজার টাকা দিতে হবে। সন্ধ্যায় প্রসবের পর নবজাতকের কোনো নড়াচড়া না দেখে তারা হতাশ হয়ে পড়েন। পরে মৃত নবজাতকের গলায় কয়েকটা আঁচড়ের দাগ দেখতে পান। তার সন্তানের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে ওষুধ আনার কথা বলে নার্স রেখা পাল পালিয়ে যান। এরপর তাকে আর হাসপাতালে দেখা যায়নি। রাতে রেখা রাজনৈতিক নেতা ও বিভিন্ন লোকজনের মাধ্যমে তাকে সমঝোতার প্রস্তাব দেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা উৎপল দাশ বলেন, এ বিষয়ে রেখা পাল আমাকে কিছুই জানাননি। অন্যদের থেকে শুনে  জেনেছি। নিরাপদ প্রসবের ক্ষেত্রে নবজাতকের মৃত্যু হওয়ায় হয়তো রেখা পালের ভুল হতে পারে। লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে রেখার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ/এমকে/আরএম