সরকার গণতন্ত্রকে এগিয়ে নিতে অবিরাম প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে: সেতুমন্ত্রী

সরকার গণতন্ত্রকে এগিয়ে নিতে অবিরাম প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে: সেতুমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৪:৩৫ ৮ মার্চ ২০২১   আপডেট: ১৯:২৬ ৮ মার্চ ২০২১

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের- ফাইল ছবি

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের- ফাইল ছবি

শেখ হাসিনা সরকার গণতন্ত্রকে এগিয়ে নিতে অবিরাম প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

সোমবার তার সরকারি বাসভবনে নিয়মিত ব্রিফিংকালে তিনি এ কথা জানান।

সেতুমন্ত্রী বলেন, শেখ হাসিনা সরকার গণতন্ত্রকে এগিয়ে নিতে অবিরাম প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে অথচ বিএনপি কোনোরূপ সহযোগিতা করছে না। অপরাজনীতির মাধ্যমে গণতন্ত্রের এগিয়ে যাওয়ার গতিকে বারবার থামিয়ে দিচ্ছে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপির অগণতান্ত্রিক আচরণ এবং রাজনীতি এদেশের গণতন্ত্রের চলমান ধারাকে বিঘ্নিত করছে। বিএনপির বিকল্প আন্দোলন হচ্ছে আগুন সন্ত্রাস, অপরাজনীতি, গুজব তৈরি করা, দেশ-বিদেশে গোপন বৈঠক আর ষড়যন্ত্র।

বিএনপি নেতাদের হুঁশিয়ার করে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিকল্প আন্দোলনের নামে দেশের সম্পদ এবং জীবনহানি ঘটানোর অপপ্রয়াস জনগণ ও সরকার মেনে নেবে না।

তিনি আরো বলেন, জনবিচ্ছিন্ন আন্দোলনের ভয় দেখিয়ে কোনো লাভ নেই। কারণ মুজিব আদর্শের সৈনিকরা রাজপথ ভয় পায় না।

বিএনপির আন্দোলনের হুমকির ব্যাপারে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, যারা এ পর্যন্ত রাজপথে কোনো ধরনের আন্দোলনের ঢেউ তুলতে পারেনি, তাদের বাধা দেয়ার দরকার হয় না। বিএনপি আন্দোলনে জনগণকে সম্পৃক্ত করতে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে।

বিরোধী মত দমাতে শক্তির ব্যবহারের অভিযোগের ব্যাপারে সেতুমন্ত্রী বলেন, সেই শক্তির পরিচয় জনসম্মুখে প্রকাশ করতে বিএনপি মহাসচিবের প্রতি আহ্বান জানাই। বিরোধী মত দমাতে কিংবা মতপ্রকাশে বাধা দিতে এ পর্যন্ত একজন বিএনপি নেতাকেও গ্রেফতার করা হয়নি। সুতরাং দেশে মতপ্রকাশের স্বাধীনতা সম্পূর্ণভাবে বিরাজমান।

বিএনপি এদেশে দুর্নীতিকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিয়েছিল উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ক্ষমতার অপব্যবহারের মহোৎসব বিএনপি-জামায়াতের শাসনামলে হয়েছিল এবং হাওয়া ভবন নামে বিকল্প ক্ষমতাকেন্দ্রও তৈরি করা হয়েছিল।

ডেইলি বাংলাদেশ/জাআ/এমকেএ/এইচএন