‘দেশের রাজনীতিতে আওয়ামী লীগ-বঙ্গবন্ধু পরিবার ত্যাগের মহিমায় সমুজ্জ্বল’

‘দেশের রাজনীতিতে আওয়ামী লীগ-বঙ্গবন্ধু পরিবার ত্যাগের মহিমায় সমুজ্জ্বল’

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৪:০৭ ২৫ নভেম্বর ২০২০   আপডেট: ১৯:০৬ ২৫ নভেম্বর ২০২০

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের- ফাইল ছবি

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের- ফাইল ছবি

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, এ দেশের রাজনীতিতে আওয়ামী লীগ ও বঙ্গবন্ধু পরিবার ত্যাগের মহিমায় সমুজ্জ্বল।

বুধবার তার সরকারি বাসভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী এ কথা বলেন।

এ দেশের রাজনীতিতে সততা আর ত্যাগের প্রতীক বঙ্গবন্ধু পরিবার উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, বঙ্গবন্ধু পরিবারের হাতে কোনো ভাঙা স্যুটকেস ছিল না, যা থেকে বড় বড় জাহাজ বেরিয়ে আসবে। ছিল শুধু জনগণের ভালোবাসা।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, এ দেশের রাজনীতিতে আওয়ামী লীগ ও বঙ্গবন্ধু পরিবার ত্যাগের মহিমায় সমুজ্জ্বল। ক্ষমতা ভাগাভাগি আর উচ্ছিষ্ট ভোগ করা বিএনপির ঐতিহ্য। ভোগবিলাস দুর্নীতি, ষড়যন্ত্র বিএনপির মজ্জাগত স্বভাব। বিএনপি ক্ষমতাকে নিজেদের ভাগ্য বদলের উৎস মনে করে। মিথ্যাচার বিএনপির বিকৃত মানসিকতা এবং তাদের কর্তৃক  ইতিহাস বিকৃতির ধারাবাহিকতাকে প্রকাশ করে থাকে।

তিনি আরো বলেন, বিদেশিদের কাছে নয়, যদি নালিশ করতেই হয় তাহলে দেশের জনগণের কাছে নালিশ করেন। 

বিএনপি নেতাদের এক মন্তব্য প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, গণতন্ত্রহীনতা এবং অগণতান্ত্রিক চর্চা যাদের দলগত বৈশিষ্ট্য তাদের মুখে এ কথা ভূতের মুখে রাম রাম ধ্বনির মতো।

তিনি প্রশ্ন রেখে বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালীন দলে এবং সরকারে তথাকথিত বিএনপি মার্কা গণতন্ত্রচর্চা জাতি দেখেছে। ১৯৯৬ সালে জনগণ আন্দোলন করে যাদেরকে ক্ষমতা থেকে নামিয়েছে, তারা এখন গণতন্ত্রের সবক দিচ্ছে। এটা জনগণের সঙ্গে প্রতারণা। উল্লেখ্য, বিএনপিকে দেশের জনগণ প্রতারক হিসেবেই চেনে ও জানে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপির গণতন্ত্র হচ্ছে রাতের বেলায় কারফিউ, নিজ দলে বছরের পর বছর কমিটি গঠনে ব্যর্থ হওয়া, এবং কমিটি গঠন করা হলেও নিজ দলের অফিসে নিজেরাই আগুন দেয়া। 

তিনি বলেন, জন্মলগ্ন থেকে বিএনপি গণতন্ত্রের মুখোশ পরে চললেও তাদের নেতাদের মুখচ্ছবিতে জুলুমতন্ত্র আর সুবিধাবাদীদের প্রতিচ্ছবি বারবার ফুটে উঠে। বিএনপির গণতন্ত্র চর্চার সাফল্য বলতে বোঝায় ‘হাওয়া ভবন প্রতিষ্ঠার মধ্য দিয়ে মানুষের অধিকার হরণ ও দুর্নীতির  লালন-পালন ও বিকাশ কেন্দ্র।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমেই এ দেশের স্বাধীনতা এসেছে এবং দেশের স্বাধীনতার সুরক্ষা আওয়ামী লীগের হাত ধরেই এসেছে। 

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি কথায় কথায় বিভিন্ন দূতাবাসে নালিশ এবং রাতের আধারে দূতাবাসের কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করে। তাদের মুখে দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষার কথা মানায় না। 

বিএনপির রাজনীতি জনমুখী নয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, তাদের রাজনীতি পদ্মা মেঘনা যমুনার তীরের মানুষের জন্য নয়। বিএনপি তাকিয়ে থাকে টেমস নদীর তীরের দিকে।

তিনি বলেন, বিএনপি নেতৃত্বের কোনো সক্ষমতা জন্মে নাই, এই দলের নেতা ও সদস্যরা শুধুমাত্র নির্দেশ পালন করে থাকে।  তাই জনগণের এখন বুঝতে  নেই যে, পুতুল কোথা থেকে নাচানো হয়, এবং কোথায় সুতার টান! 

ডেইলি বাংলাদেশ/জাআ/এমকেএ/এইচএন/AN/এসআর