জাল ৩০ এনআইডির তথ্য সংগ্রহ করছে ডিবি

জাল ৩০ এনআইডির তথ্য সংগ্রহ করছে ডিবি

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৮:৩৮ ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ১৮:৪০ ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

জাল জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) তৈরি করে ঋণ উত্তোলন করেছেন বা ঋণের আবেদন করেছেন, এ ধরনের আরো ৩০টি এনআইডির বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ করছে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। 

ডিবি সূত্রে জানা গেছে, জাল এনআইডিতে ঋণ নিয়েছেন এমন কয়েকজনকে শনাক্ত ও নজরদারিতেও রাখা হয়েছে। এছাড়া ঋণপ্রাপ্তিতে সহায়তাকারী ব্যাংক কর্মকর্তাদেরও তালিকা করা হয়েছে।

একটি চক্র জাল এনআইডি ব্যবহার করে বিভিন্ন ব্যাংক থেকে ঋণ পেতে সহায়তা করছিল। নির্বাচন কমিশনের ডাটা এন্ট্রি অপারেটর ও ব্যাংক কর্মকর্তাদের সহায়তায় মোটা অঙ্কের অর্থের বিনিময়ে তারা এ সহায়তা করতেন।

জানা গেছে, ব্যাংক ঋণ পেতে বাংলাদেশ ব্যাংকের ক্রেডিট ইনফরমেশন ব্যুরোর (সিআইবি) প্রতিবেদন প্রয়োজন হয়। জাল এনআইডির বিপরীতে ঋণ নেয়া ও ঋণের জন্য আবেদনকারী ব্যক্তিদের তথ্য সংগ্রহের জন্য গত ২১ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ ব্যাংকের সিআইবি প্রতিবেদন পেতে ডিবির পক্ষ থেকে আবেদন করা হয়। সিআইবি প্রতিবেদনে ব্যাংকের কোন কর্মকর্তা কীভাবে ঋণ দিয়েছেন তা উঠে আসবে।

রাজধানীর মিরপুর চিড়িয়াখানা রোড এলাকায় গত ১২ সেপ্টেম্বর রাতে অভিযান চালিয়ে দ্বৈত, জাল ও ডুপ্লিকেট জাতীয় পরিচয়পত্র তৈরি ও বিভিন্ন ব্যাংক থেকে ঋণ উত্তোলনে সহায়তাকারী প্রতারকচক্রের পাঁচ সদস্যকে গ্রেফতার করে ডিবি পুলিশের সংঘবদ্ধ অপরাধ ও গাড়ি চুরি প্রতিরোধ টিম। এ সময় তাদের কাছ থেকে দ্বৈত, জাল ও ডুপ্লিকেট ১২টি জাতীয় পরিচয়পত্র উদ্ধার করা হয়।

এ প্রসঙ্গে ডিবি লালবাগ বিভাগের সংঘবদ্ধ অপরাধ ও গাড়ি চুরি প্রতিরোধ টিমের সহকারী কমিশনার (এসি) মধুসূদন দাস বলেন, আমরা জাল এনআইডির বিপরীতে ঋণ নিয়েছেন ও ঋণের জন্য আবেদন করেছেন এমন ব্যক্তিদের তথ্যপ্রাপ্তির জন্য সিআইবি প্রতিবেদন পেতে আদালতে আবেদন করেছি। সিআইবি প্রতিবেদন পেলে জাল এনআইডির বিপরীতে কারা কারা কী পরিমাণ ঋণ নিয়েছেন এবং ঋণের জন্য আবেদন করেছেন তা স্পষ্ট হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর