ঢাকায় আনা হচ্ছে কুমিল্লায় বিস্ফোরণে দগ্ধ ৩ জনকে

ঢাকায় আনা হচ্ছে কুমিল্লায় বিস্ফোরণে দগ্ধ ৩ জনকে

কুমিল্লা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৫:০৩ ১৪ জানুয়ারি ২০২২   আপডেট: ১৫:০৬ ১৪ জানুয়ারি ২০২২

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিস্ফোরণে দগ্ধ এক শিশু

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিস্ফোরণে দগ্ধ এক শিশু

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে বেলুন ফোলানোর সময় গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে দগ্ধদের মধ্যে তিনজনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে আনা হচ্ছে।

তারা হলেন- বেলুন বিক্রেতা আনোয়ার হোসেন, আবদুর রব ও শাহ আলম।

কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ক্যাজুয়ালটি বিভাগের ইনচার্জ ও সার্জারি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ সেফায়েত উল্লাহ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা থেকে রাত পর্যন্ত নাঙ্গলকোটের ঘটনায় ১৬ জনকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। তাদের মধ্যে রাতেই দুই শিশুর জরুরি অস্ত্রোপচার হয়েছে। বেলুন বিক্রেতা আনোয়ারসহ গুরুতর তিনজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হচ্ছে।

কুমিল্লার সিভিল সার্জন ডা. মীর মোবারক হোসেন জানান, নাঙ্গলকোটের ঘটনায় আহতদের বেশিরভাগই শিশু।। তাদের গুরুত্ব দিয়ে সর্বোচ্চ চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

নাঙ্গলকোট থানার ওসি ওমর ফারুক বলেন, গ্যাস সিলিন্ডারে বেলুন ফোলানোর বিষয়টি প্রশাসন জানত না। তবে কী কারণে এমন বিস্ফোরণ হতে পারে তা তদন্ত করা হবে। প্রাথমিকভাবে আমরা জানতে পেরেছি সিলিন্ডারটি দুর্বল ছিল।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে ঐ উপজেলার মৌকরা ইউনিয়নের বিরলী গ্রামে গ্যাস সিলিন্ডার থেকে বেলুন ফোলানোর সময় বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। এতে শিশুসহ অন্তত ৪১ জন আহত হয়েছে।

শনিবার থেকে একই উপজেলার ঢালুয়া ইউনিয়নে শুরু হচ্ছে ঐতিহ্যবাহী শতবর্ষী ঠাণ্ডাকালীর মেলা। মেলায় অংশ নিতে বিরলী গ্রামের আনোয়ার হোসেন বাড়ির সামনে বসে সিলিন্ডার থেকে গ্যাস দিয়ে বেলুন ফোলাচ্ছিলেন। দৃশ্যটি দেখতে শিশুসহ অর্ধশতাধিক মানুষ জড়ো হয়। এক পর্যায়ে সিলিন্ডারটির বিস্ফোরণ ঘটে। খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক স্বজনরা আহতদের উদ্ধার করে নাঙ্গলকোট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাদের জেলার বিভিন্ন হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর