চাকরি ছাড়াই বেতন তুলেছেন ৪২ মাস!

চাকরি ছাড়াই বেতন তুলেছেন ৪২ মাস!

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৮:৩১ ২২ ডিসেম্বর ২০২০  

গ্রাম পুলিশ মো. গিয়াস উদ্দিন

গ্রাম পুলিশ মো. গিয়াস উদ্দিন

চাকরি থেকে অবসরে গেছেন তিন বছর ছয় মাস আগে। তবুও প্রতি মাসে সাড়ে ছয় হাজার টাকা করে বেতন তুলেছেন গ্রাম পুলিশ মো. গিয়াস উদ্দিন। তবে শেষ পর্যন্ত ধরা পড়ে গেলেন তিনি। সাত দিনের মধ্যেই তাকে ৪২ মাস পর্যন্ত তোলা অতিরিক্ত টাকা ফেরত দিতে হবে।

গিয়াস উদ্দিন ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার রাজগাতি ইউনিয়নের আউটারগাতি গ্রামের তাজ উদ্দিনের ছেলে। ২০১৭ সালের ১২ জুন তার ৫৯ বছর সম্পন্ন হয়। এরপর ওই দিন থেকেই তিনি সরকারি নিয়ম অনুযায়ী চাকরি থেকে অবসরে যান। কিন্তু এরপরও প্রতি মাসে সরকারি বেতন-ভাতাদি তোলায় বিষয়টি ধরা পড়ে।

একপর্যায়ে এক অভিযোগের প্রেক্ষিতে তদন্তে নামেন নান্দাইলের ইউএনও এরশাদ উদ্দিন। তদন্ত শেষে গত মঙ্গলবার তাকে বরখাস্ত করে আগামী সাত দিনের মধ্যে উত্তোলিত অতিরিক্ত টাকা ফেরত দেয়ার নির্দেশ দেন তিনি।

অনুসন্ধানে দেখা যায়, গ্রাম পুলিশ গিয়াস উদ্দিনের জাতীয় পরিচয়পত্রে জন্ম তারিখ ১৯৫৮ সালের ১৩ জুন। কিন্তু তিনি নকল জাতীয় পরিচয়পত্র ব্যবহার করে জন্ম তারিখ দিয়েছেন ১৯৬৮ সালের ১৩ জুন। এ জাতীয় পরিচয়পত্র ব্যবহার করেই চাকরি করছিলেন গিয়াস। নির্বাচন অফিসের ওয়েবসাইট থেকে পাওয়া জাতীয় পরিচয়পত্র যাচাই করলে ঘটনাটি ধরা পড়ে। পরে ইউএনও এরশাদ উদ্দিন গ্রাম পুলিশ গিয়াস উদ্দিনকে শোকজ করেন।

শোকজ করার দীর্ঘদিন পার হলেও কোনো জবাব দেননি গিয়াস উদ্দিন। একপর্যায়ে গত মঙ্গলবার গ্রাম পুলিশকে বরখাস্ত করে সরকারি প্রাপ্য আদায় আইন ২০১৩ সালের আইন অনুযায়ী টাকা ফেরত দেয়ার নির্দেশ দেন ইউএনও। এ বিষয়ে জানতে গিয়াস উদ্দিনের মুঠোফোনে কল করলেও বন্ধ পাওয়া যায়।

নান্দাইলের ইউএনও এরশাদ উদ্দিন বলেন, ঘটনাটি কারা এতদিন ধামাচাপা রেখেছিল সেটিও তদন্ত করে দেখা হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর