আজকের এই অবস্থানে আমি কষ্ট করে এসেছি: পপি

আজকের এই অবস্থানে আমি কষ্ট করে এসেছি: পপি

বিনোদন প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৩:৫৮ ২৪ ডিসেম্বর ২০২০  

সাদিকা পারভিন পপি

সাদিকা পারভিন পপি

দুই যুগের অভিনয় জীবনে তিনবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেছেন। পেয়েছেন আরো অসংখ্য সম্মাননা, অবস্থান করছেন জনপ্রিয়তার শীর্ষে। এখনো সমান দাপট নিয়ে চলচ্চিত্রে অভিনয় করে যাচ্ছেন। বলছিলাম ঢাকাইয়া চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় নায়িকা সাদিকা পারভিন পপি’র কথা। তবে রূপালি পর্দায় সবাই তাকে পপি নামেই চিনে। 

সম্প্রতি ডেইলি বাংলাদেশ-এর সঙ্গে আলাপচারিতা হয় এই দর্শকনন্দিত অভিনেত্রীর। তার সাক্ষাৎকার নিয়েছেন রুম্মান রয়। 

ডেইলি বাংলাদেশ: এখনো আমরা ‘কোভিড-১৯’ কাটিয়ে উঠতে পারিনি, এটা নিয়ে আপনি কি বলবেন?
পপি:
আসলে আমরা সবাই এটা নিয়ে এখনো আতংকের মধ্যে আছি। দোয়া করা ছাড়া কিইবা করার আছে আমাদের। তবুও আমাদের সবাইকে সচেতনভাবে এটা মোকাবেলা করা উচিত। সবাই সচেতন থাকুন সাবধানে থাকুন। 

সাদিকা পারভিন পপি

ডেইলি বাংলাদেশ: নতুন বছরে আপনার বেশ কয়েকটি নতুন সিনেমা মুক্তি পাবে, সিনেমাগুলো নিয়ে আপনি কেমন আশাবাদী?
পপি:
আসলে দেশের এ অবস্থায় আমি নিজেও কনফিউজড হলে দর্শকরা আসবে কিনা। তবুও আমি সিনেমাগুলো নিয়ে আশাবাদী। কারণ আমার অভিনীত সিনেমার গল্প আর মেকিং ভালো। মুক্তি পেলে দর্শকরা পছন্দ করবেন।

ডেইলি বাংলাদেশ: এখন সিনেমা হলের সংখ্যা কমে যাচ্ছে। এই অবস্থায় সিনেমায় দর্শক কমে গেছে, এটি কি ব্যবসা ঝুঁকি বাড়াচ্ছে?
পপি:
আসলে ভালো একটা সিনেমা দেখার জন্য ভালো একটা পরিবেশের দরকার। পরিবেশ ভালো না হলে সিনেমা হলে দর্শক কখনোই আসবে না। তারা এখনো কোভিড-১৯ সার্ভাইভ করতে পারিনি। এই অবস্থায় আসলেই সিনেমার ব্যবসা নিয়ে সবাই চিন্তিত।

ডেইলি বাংলাদেশ: তারকাদের নিয়ে গসিপ এটা আপনি কীভাবে দেখেন?
পপি:
গসিপ কখনোই কারো জন্যই কাম্য নয়। আর সেটা তো তারকাদের জন্য কখনোই ভালো নয়। প্রত্যকটা মানুষেরই একটা নিজস্ব পারসোনাল ইমেজ থাকে। যেখানে নিজস্ব সম্মান থাকে সেখানে সবাই ভালোবাসে। পারসোনাল ইমেজ না থাকলে স্টার হওয়া যায় না। ইদানিং খুব দুঃখ ও লজ্জার সঙ্গে বলতে হচ্ছে নামধারী সাংবাদিক ইউটিউবাররা তারা তাদের শুধুমাত্র নিউজের ভিউয়ার বাড়ানোর জন্য আমাদের নামে যা নয় তাই লিখছে। খুবই নোংরা নোংরা কথা তারা লিখে। তাদের তো বোঝা উচিত আমরাও তো এই সমাজের অংশ। আমার কথা হলো তাদের কি মা-বোন নেই! তাদেরকে কি সম্মান করেন না! তারা কীভাবে আমাদেরকে অসম্মান করে আজেবাজে কথা লিখে। এটাতো একটা দেশদ্রোহীর মতো কাজ। আমি তো বলবো তারা তো আর্টিস্টকে বিক্রি করে। তারা কি তাদের মা-বোনকে বিক্রি করে। তাদের কি বিবেক বলে কিছুই নেই? যারা অসম্মানী জায়গা থেকে আসে তারাই অন্যকে সম্মান দিতে জানে না। আমি আমার আজকের এই অবস্থানে অনেক কষ্ট করে এসেছি। 

সাদিকা পারভিন পপি

ডেইলি বাংলাদেশ: আপনার কাছে সবচেয়ে বিব্রতকর প্রশ্ন কোনটা?
পপি:
বিয়ে নিয়ে প্রশ্ন করা। দেখা যায় তারা যখন তখন কোনো কারণ ছাড়াই আমাকে বিয়ে দিচ্ছে। এটাতে আমি খুবই বিব্রত হই এবং অসম্মান বোধ করি। তারা কেন এটা করবে? তারা নিজেদের ইচ্ছা মতো আমার বিয়ে বর বানিয়ে ফেলে। আমি তো তাদের খাই ও না পড়িও না, তাহলে আমাকে অসম্মান করার সাহস পায় কোথা থেকে?

ডেইলি বাংলাদেশ: সিনেমার অনেক তারকাই ওটিটি প্ল্যাটফর্মে কাজ করছেন। আপনি ওটিটি প্ল্যাটফর্মে কাজ করাটা কি সমর্থন করেন?
পপি:
আমি একজন অভিনয়শিল্পী আমার ভালো কাজ করার সুযোগ যেখানে থাকবে সেখানেই কাজ করবো। আমি আর্টিস্ট, অভিনয় আমার পেশা। মানুষ আমার অভিনয়কে ভালোবাসে, আর আমি তাদের ভালোবাসাকে সম্মান করি। আমার কাজ যেহেতু অভিনয় করা, তাই ভালো অভিনয়ের সুযোগ থাকলে আমি সেটা সিনেমাই হোক, নাটক হোক, ওয়েব সিরিজ হোক কোনো আপত্তি থাকবে না। 

সাদিকা পারভিন পপি

ডেইলি বাংলাদেশ: আপনার নতুন কাজের কি খবর?
পপি:
সত্যি বলতে করোনার কারণে নতুন কোনো কাজের আপডেট নেই।

ডেইলি বাংলাদেশ: নতুন বছরে আপনার প্রত্যাশা কি?
পপি:
আমি চাই সবাই এই অবস্থা কাটিয়ে উঠুক। সবাই আবার আগের মতো একসঙ্গে মিলেমিশে কাজ করতে পারি। সিনেমার সংখ্যা বাড়ুক, হল সংখ্যা বাড়ুক।

ডেইলি বাংলাদেশ/টিএএস