আমি নিজেই নিজের প্রতিদ্বন্দ্বী: তোরসা

আমি নিজেই নিজের প্রতিদ্বন্দ্বী: তোরসা

রুম্মান রয় ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৮:০০ ১৮ ডিসেম্বর ২০২০  

রাফাহ্ নানজীবা তোরসা

রাফাহ্ নানজীবা তোরসা

অভিনয়,নৃত্য,আবৃত্তি,অংকন,বিতর্ক ও উপস্থাপনায় বহুগুণের অধিকারিনী বন্দরীনগর চট্টগ্রামের মেয়ে রাফাহ্ নানজীবা তোরসা। গেলো বছর ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ-২০১৯’ এর মুকুট নিজের করে নেন। এরপরে মিস ওয়ার্ল্ডের মূলপর্বে বাংলাদেশের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেন। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী তিন বছর বয়স থেকেই সাংস্কৃতিক অঙ্গনে বিচরণ করা শুরু করেন। 

২০১০ সালে জাতীয় শিশু প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন এবং ভরতনাট্যম নাচে স্বর্ণপদক অর্জন করেছিলেন। এখানেই শেষ নয়, একই বছর মার্কস অলরাউন্ডার্স প্রতিযোগিতায় রানার্সআপ হয়ে ছিলেন। সম্প্রতি ডেইলি বাংলাদেশের সঙ্গে আড্ডায় বর্তমান সময়ে তার কাজের ব্যস্ততা ও নানা দিক নিয়ে কথা হয়। 

বর্তমানে আপনার ব্যস্ততা কি নিয়ে?
রাফাহ্ নানজীবা তোরসা:
আমরা সবাই কোভিড মহামারীর মধ্য দিয়ে যাচ্ছি। এর কারণে অনেক অংশেই কাজের পরিমাণ কমিয়ে আনতে হয়েছে। যদিও মিডিয়া রিলেটেড এবং আন্তর্জতিক চ্যারিটি রিলেটেড বেশ কাজ পিছিয়েছি, তবে স্বেচ্ছাসেবীর কাজ থেমে ছিলো না। বর্তমানে বিভিন্ন শুটিং, অনস্ক্রিন কাজ, মিটিং ইত্যাদি চলছে আর সঙ্গে চলছে অনলাইন ক্লাস।

রাফাহ্ নানজীবা তোরসা

‘দ্যা স্মাইল ফাউন্ডেশন’ নামে আপনার একটি প্রতিষ্ঠান আছে, সেটার সম্পর্কে জানতে চাই
রাফাহ্ নানজীবা তোরসা:
আমি সবসময় মানি যেকোনো কাজে এগিয়ে যেতে হলে সময়, ধৈর্য ও শ্রম দরকার। তাই ধীরে এগুচ্ছি। যদিও সবার দোয়া এবং ভালোবাসায় শীঘ্রিই ভালো কিছু প্রজেক্ট নিয়ে আসছি। সবার প্রতি আমার অনুরোধ থাকবে ভালো কাজ করা পজেটিভভাবে অন্যের পাশে দাঁড়ানো। এইজন্য আমরা সৃষ্টির সেরা।

আপনার চারপাশের মানুষের কাছ থেকে কেমন সাপোর্ট পাচ্ছেন?
রাফাহ্ নানজীবা তোরসা:
আমি অসম্ভব রকম লাকি এই জায়গায় সবসময়। ১০০ তে ১০০ আমি কৃতজ্ঞ। ভালোবাসা আমার পরিবার পরিজন, বন্ধু, প্রত্যেকটি শিক্ষক, সংগঠন, প্রত্যেকটি সংবাদ কর্মীদের প্রতি যারা বিভিন্ন সময় আমাকে সাপোর্ট করেছেন, বাংলাদেশকে সাপোর্ট করেছেন। 

রাফাহ্ নানজীবা তোরসা

অভিনয়ে আসছেন কবে?
রাফাহ্ নানজীবা তোরসা:
টুকটাক কাজ করা হচ্ছে, রেগুলার হবো শীঘ্রই। অবশ্যই জানাবো, পাশে থাকবেন। 

সিনেমায় অভিনয় করার জন্য কোনো প্রস্তাব পেয়েছেন কি?
রাফাহ্ নানজীবা তোরসা:
বেশ অফার এসেছে।  ইনশাআল্লাহ্ ভালো কাজ নিয়ে আসবো।

নিজের ক্যারিয়ারকে কোন পর্যায়ে নিয়ে যেতে চান?
রাফাহ্ নানজীবা তোরসা:
আন্তর্জাতিক পর্যায়ে দেখি নিজেকে। 

নিজেকে আপনি কিভাবে মূল্যায়ন করেন?
রাফাহ্ নানজীবা তোরসা:
নিজের নিজেকে মূল্যায়ন করতে পারা খুব প্রয়োজন। নিজের সঙ্গে নিজের বোঝাপড়া থাকতে হবে। আমি নিজেই নিজের প্রতিদ্বন্দ্বী, নিজের নিজের সবচেয়ে বড় সমালোচক। দিনশেষে একটাই কথা নিজেকে বলি, You have to be the best version better than yesterday.

ডেইলি বাংলাদেশ/টিএএস