কোন দেশের কাছে কত পরমাণু অস্ত্র রয়েছে?

কোন দেশের কাছে কত পরমাণু অস্ত্র রয়েছে?

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৫:১১ ২৬ অক্টোবর ২০২০  

ছবি: পারমাণবিক বোমার বিস্ফোরণ

ছবি: পারমাণবিক বোমার বিস্ফোরণ

বিশ্বের সবচেয়ে বিধ্বংসী অস্ত্র হলো পারমাণবিক বোমা। মানব সভ্যতাকে নিমিষেই ধ্বংস করে দিতে পারে এটি। বিশ্বের শান্তি ও মানব সভ্যতার নিরাপত্তার জন্য ভয়াবহ এই পরমাণু অস্ত্রের বিরুদ্ধে সম্প্রতি অবস্থান নিয়েছে পৃথিবীর ১২২টি দেশ। তবুও এ অস্ত্রের নিয়ন্ত্রণ করতে পারা নিয়ে সন্দিহান জাতিসংঘ। সংস্থাটি বহুদিন ধরে চেষ্টা করে আসছে এই ধ্বংসাত্মক অস্ত্র পুরোপুরি নিশ্চিহ্ন করতে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানায়, বর্তমানে বিশ্বের নয়টি দেশের কাছে অতি বিধ্বংসী এই পারমাণবিক অস্ত্র রয়েছে। দেশগুলো হল: যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, চীন, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, উত্তর কোরিয়া, ইসরায়েল, ভারত ও পাকিস্তান।

১৯৮০-র দশকের মাঝামাঝি নাগাদ ৭০ হাজারের মত পারমাণবিক অস্ত্রের অস্তিত্ব সম্পর্কে জানা ছিল। কিন্তু এখনো প্রায় ১৪ হাজার পরমাণু অস্ত্র আছে বলে মনে করা হয়।

যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়ার কাছে আছে সবচেয়ে বেশি পরমাণু অস্ত্র। এর পরে পরমাণু অস্ত্রের সম্ভারের তালিকায় স্থান ক্রমান্বয়ে ফ্রান্স, চীন, ব্রিটেন, ভারত, পাকিস্তান ও উত্তর কোরিয়ার। ইসরায়েলের কাছেও পারমাণবিক অস্ত্র আছে বলে ব্যাপকভাবে বিশ্বাস করা হয়, কিন্তু ইসরায়েল এটা নিশ্চিতও করে না বা অস্বীকারও করে না।

বিবিসি’র প্রতিবেদন অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্র ৬ হাজার ৮০০, রাশিয়া ৭ হাজার, যুক্তরাজ্য ২১৫টি, ফ্রান্স ৩০০টি, চীন ২৭০টি, পাকিস্তান ১৪০টি, ভারত ১৩০টি, ইসরাইল ৮০টি, উত্তর কোরিয়ার কাছে ২০টি পরমাণু অস্ত্র রয়েছে। এটি ২০১৭ সালে বিবিসির করা একটি অনুসন্ধানে তথ্য। তবে ইসরায়েল কখনোই নিজেদের পরমাণু অস্ত্র সম্পর্কে কোনো স্পষ্ট তথ্য প্রকাশ করেনি। তাই এটিকে আনুমানিক ধরে নেয়া হয়েছে। এ তথ্য সংগ্রহের পর সব দেশেই পরমাণু অস্ত্র বৃদ্ধি পেয়ে থাকতে পারে বলেও ধারনা করা হচ্ছে।

পারমাণবিক অস্ত্র-বিস্তার রোধ চুক্তি যেটি ১৯৭০ সালে ১৯০টি দেশ সমর্থন করেছিল, তাতে স্বাক্ষরকারী দেশগুলোর মধ্যে ছিল আমেরিকা, রাশিয়া, ফ্রান্স, ব্রিটেন এবং চীন। ওই স্বাক্ষরদানের মাধ্যমে ১৯০টি দেশ প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল তারা তাদের পারমাণবিক অস্ত্রের মজুত কমাবে এবং অন্য দেশের পারমাণবিক অস্ত্র সংগ্রহও ওই চুক্তির অধীনে নিষিদ্ধ করা হয়েছিল।

ভারত, পাকিস্তান এবং ইসরায়েল ওই চুক্তিতে সই করেনি। এবং উত্তর কোরিয়া ২০০৩ সালে ওই চুক্তি থেকে বেরিয়ে যায়। আমেরিকা, রাশিয়া এবং ব্রিটন তাদের অস্ত্রের সম্ভার কমিয়েছে। রাশিয়া এবং আমেরিকার মধ্যে পারমাণবিক অস্ত্র নিয়ে শেষ যে চুক্তিগুলো হয়েছিল সেগুলোর মেয়াদ বৃদ্ধির চেষ্টা করছে। এসব চুক্তির মেয়াদ ফেব্রুয়ারি মাসে শেষ হয়ে যাবার কথা।

২০১০ সালে তাদের মধ্যে নতুন যে স্টার্ট অস্ত্র চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছিল, তার আওতায় দুটি দেশের প্রত্যেকে ১,৫৫০টির বেশি দূর পাল্লার পারমাণবিক অস্ত্র মুখ রাখতে পারবে না। তবে আমেরিকা সম্প্রতি আরেকটি চুক্তি থেকে বেরিয়ে গেছে যেটি ছিল মাঝারি পাল্লার পারমাণবিক অস্ত্র চুক্তি, যেটি দুই দেশ সই করেছিল শীতল যুদ্ধের সময়। রাশিয়া ওই চুক্তি লংঘন করেছিল এই অভিযোগ তুলে আমেরিকা সেই চুক্তি থেকে বেরিয়ে যায়।

ডেইলি বাংলাদেশ/মাহাদী