ক্যামেরুনে স্কুলে বন্দুকধারীদের হামলায় নিহত ৮ শিক্ষার্থী

ক্যামেরুনে স্কুলে বন্দুকধারীদের হামলায় নিহত ৮ শিক্ষার্থী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৪:৫১ ২৫ অক্টোবর ২০২০  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

ক্যামেরুনের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় কুম্বার একটি স্কুলে হামলা চালিয়েছে বন্দুকধারী সন্ত্রাসীরা। এতে কমপক্ষে আট শিক্ষার্থী নিহত হয়েছেন। এছাড়া আরো ৮ জন আহত হয়েছেন।

শনিবার স্থানীয় সময় দুপুরের দিকে এই হামলার ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় কর্মকর্তা ও অভিভাবকরা। হামলার সময় স্কুলের বাইরে থাকা এক অভিভাবক জানান, বেসামরিক পোশাক পড়ে মোটরসাইকেলে করে আসে ওই বন্দুকধারীরা। এরপর শিশু শিক্ষার্থীদের ওপর গুলি চালায় তারা। এই সময় বেশ কয়েকটি শিশু দোতলার জানালা দিয়ে লাফিয়ে পড়ে আহত হয়েছে বলেও জানায় তারা।

এই অঞ্চলটিতে বিচ্ছিন্নতাবাদী বিদ্রোহীদের তৎপরতা রয়েছে। এই হামলা দেশটির সরাকারি বাহিনী ও পশ্চিমাঞ্চলীয় ইংরেজিভাষী অঞ্চলে  অ্যাম্বাজোনিয়া নামক একটি বিচ্ছিন্ন রাষ্ট্র গঠনের চেষ্টাকারী গোষ্ঠীগুলোর মধ্যে চলমান লড়াইয়ের সঙ্গে যুক্ত কিনা সেটি এখনো স্পষ্ট নয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, এই রক্তপাতের জন্য অ্যাম্বাজোনিয়া যোদ্ধারা দায়ী। তারাই ওই স্কুলে গিয়ে শিক্ষার্থীদের ওপর গুলি চালাতে শুরু করে। তাদের মতে, শিক্ষার্থীরা ক্লাসে যোগ দেয়ার মানে তারা দেশদ্রোহী। ওই যোদ্ধারা উত্তর-পশ্চিম ও দক্ষিণ-পশ্চিম অঞ্চলে স্কুল বয়কট করার আহ্বান জানিয়েছে বলেও জানান তিনি।

কুম্বা শহরের উপপ্রধান কর্মকর্তা আলী আনোগৌ রয়টার্সকে জানান, ক্লাসে শিশুদের পেয়ে তাদের ওপর গুলিবর্ষণ করে তারা।

ইসাবেল ডিয়োনে নামের এক অভিভাবক জানান, গুলির শব্দ শুনে তার ১২ বছরের মেয়ের খোঁজে দৌড়ে স্কুলের ভিতরে যান। সেখানে ক্লাসের মেঝেতে মেয়েকে পড়ে থাকতে দেখেন তিনি। মেয়েটির পেট থেকে রক্তপাত হচ্ছিলো। ও অসহায়ভাবে পড়েছিলো আর চিৎকার করে বলছিলো ‘আমাকে সাহায্য করো মা ’। গুলিতে আহত মেয়েটিকে হাসপাতালে নেয়ার পর সেখানে তার চিকিৎসা চলছে।

জাতিসংঘের মানবিক বিষয়ক দফতর জানিয়েছে, ওই হামলায় ৮ শিশু নিহত ও ১২ জন আহত হয়েছে। তাদের মধ্যে কয়েকজন চাপাতির কোপে হতাহত হয়েছে।

স্থানীয় সাংবাদিকদের ধারণ করা ও পোস্ট করা ভিডিওতে দেখা গেছে, বয়স্ক ব্যক্তিরা শিশুদের কোলে নিয়ে স্কুল থেকে বের হয়ে আসছে। সেসময়ে হাহাকাররত দর্শনার্থীরা তাদের ঘিরে ছিলেন।

রয়টার্সের যাচাই করা একটি ছবিতে একটি শ্রেণিকক্ষের ভেতরের মেঝেতে জমে থাকা রক্ত ও কাছে শিশুদের কিছু স্যান্ডেল পড়ে থাকতে দেখা গেছে।

হামলায় ১২ থেকে ১৪ বছর বয়সী ছয়টি শিশু নিহত হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন স্থানীয় শিক্ষা কর্মকর্তা আহিম আবানাউ ওবাসে। আরো আট শিশুকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

উল্লেখ্য, এই হামলার জন্য বিচ্ছিন্নতাবাদীদের দায়ী করেছেন আনোগৌ ও অন্য আরেকজন কর্মকর্তা। কিন্তু তাদের এই দায়ের পক্ষে কোনো কোনো প্রমাণ দাখিল করেননি তারা।

এক টুইটার পোস্টে এ হামলার ঘটনাকে অমানবিক বলে বর্ণনা করেছেন বিচ্ছিন্নতাবাদীদের অন্যতম নেতা আয়ুক তাবে। এই নৃশংসতার জন্য দায়ীদের অবশ্যই শাস্তি পেতে হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি

সূত্র- ডয়চে ভেলে, রয়টার্স

ডেইলি বাংলাদেশ/এসএমএফ