ব্রেক্সিট নিয়ে ইইউ’র সঙ্গে ফের আলোচনা করতে চায় ব্রিটেন

ব্রেক্সিট নিয়ে ইইউ’র সঙ্গে ফের আলোচনা করতে চায় ব্রিটেন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২১:২৬ ১৯ অক্টোবর ২০২০  

বরিস জনসন

বরিস জনসন

চুক্তিহীন ব্রেক্সিটের জন্য প্রস্তুতির ডাক দিয়েছিলো ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। তবে আবারো আলোচনার মাধ্যমে ব্রেক্সিট পরবর্তী চুক্তির লক্ষ্যে ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) সঙ্গে আলোচনায় আগ্রহ দেখাচ্ছে ব্রিটিশ সরকার। এই নিয়ে ব্রিটেনের সরকারের ওপর চাপ প্রয়োগ করা হচ্ছে।

গত শুক্রবারের মধ্যেই ইইউ’র সঙ্গে ব্রেক্সিট-পরবর্তী বোঝাপড়া চূড়ান্ত করার সময়সীমা স্থির করে দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। তবে ইইউ’র  শীর্ষ সম্মেলনে উপস্থিত নেতারা সেই হুঁশিয়ারির গ্রাহ্য করেন নি। বরং মতমার্থক্য দূর করতে আরো কিছুদিন আলোচনার প্রস্তাব রেখেছিলেন তারা। এর জবাবে জনসন সরাসরি সেই প্রস্তাবে সাড়া না দিয়ে চুক্তিহীন ব্রেক্সিটের প্রস্তুতি শুরু করার আহ্বান জানান।

রোববার স্কাই নিউজ চ্যানেলকে দেয়া সাক্ষাৎকারে জনসনের মন্ত্রিসভার প্রভাবশালী মন্ত্রী মাইকেল গোভ বলেন, আলোচনার জন্য ব্রিটেনের দ্বার পুরোপুরি খোলা রয়েছে। চুক্তি চাইলে সেটিকে সম্ভব করতে উভয় পক্ষকে আপোশ করতে হবে। তবে ইইউ আপোশের কোনো লক্ষণ দেখাচ্ছে না বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

সোমবার ব্রেক্সিটের দায়িত্বপ্রাপ্ত ব্রিটিশ মন্ত্রী ডেভিড ফ্রস্ট ও ইইউ’র প্রধান মধ্যস্থতাকারী মিশেল বার্নিয়ের মধ্যে পুনরায় আলোচনা শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। শুক্রবার জনসনের বিবৃতির পর বার্নিয়েকে লন্ডনে আসতে মানা করেছিলেন গোভ। এর পরিবর্তে সোমবার টেলিফোনে আলোচনার কথা জানান তিনি। এছাড়া সোমবার ইইউ কমিশনের ভাইস প্রেসিডেন্ট মারোস সেফকোভিচের সঙ্গেও সাক্ষাতের কথা রয়েছে গোভের। ব্রেক্সিট চুক্তি কার্যকর করার বিষয়ে আলোচনা করবেন তারা।

আগামী ৩১শে ডিসেম্বরের মধ্যে দুই পক্ষের মধ্যে বোঝাপড়া হোক বা না হোক, সীমান্তে নিয়ন্ত্রণ চালু করতেই হবে। বিশেষ করে ব্রিটেনের ব্যবসা-বাণিজ্য জগত এখনো পুরোপুরি সেই পরিস্থিতির জন্য প্রস্তুত নয়। চলতি সপ্তাহেই ব্রিটিশ সরকার এ বিষয়ে এক প্রচার অভিযান শুরু করছে। আর মাত্র ৭৪ দিনের মধ্যে প্রস্তুতি শেষ না করলে ব্রিটেনের প্রতিষ্ঠানগুলো সমস্যার মুখে পড়বে বলে বারবার মনে করিয়ে দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। ব্রিটেনের ৭০টিরও বেশি ব্যবসায়িক সংগঠন সরকারের উদ্দেশ্যে ইইউ’র সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর করার আবেদন জানিয়েছে।

ব্রেক্সিট চুক্তির শর্ত ও আন্তর্জাতিক আইন ভেঙে ব্রিটেনের সরকার যুক্তরাজ্যের ঐক্য বিপন্ন করছে বলে আশঙ্কা করছেন ব্রিটেনের ক্যাথলিক ও অ্যাংলিকান গির্জার শীর্ষ নেতারা। এক যৌথ চিঠিতে তারা যুক্তরাজ্যের চারটি অংশের মধ্যে সম্পর্কের ভবিষ্যৎ নিয়ে দুশ্চিন্তা প্রকাশ করেছেন।

উল্লেখ্য, সোমবার থেকে ব্রিটিশ পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষে সরকারের প্রস্তাবিত আইন নিয়ে বিতর্ক শুরু হবে।

সূত্র- ডয়চে ভেলে

ডেইলি বাংলাদেশ/এসএমএফ