উত্তর সাইপ্রাসের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলেন এরসিন টাটার

উত্তর সাইপ্রাসের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলেন এরসিন টাটার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২০:৩৭ ১৯ অক্টোবর ২০২০  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

তুর্কি নিয়ন্ত্রিত উত্তর সাইপ্রাসের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন দেশটির ডানপন্থী নেতা এরসিন টাটার। বর্তমানে দেশটির প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দ্বায়িত্ব পালন করেছেন তিনি।

নির্বাচনে সাইপ্রাসের ঐক্যপন্থী প্রেসিডেন্ট মুস্তাফা অ্যাকিনসিকে হারিয়েছেন টাটার। ৫১ দশমিক ৭৪ শতাংশ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন তিনি। আর সাইপ্রাসের ঐক্যের পক্ষে থাকা অ্যাকিনসি পেয়েছেন ৪৮ দশমিক ২৬ শতাংশ ভোট।

নির্বাচনে টাটারকে সমর্থন করেছিলো তুরস্ক। উত্তর সাইপ্রাসের আলাদা অস্তিত্ব রক্ষার পক্ষপাতী তিনি। তুরস্কও সেটাই চায়। নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশের পরেই টাটারকে অভিনন্দন জানিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান। এক টুইট বার্তায় এরদোগান লেখেন, প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার জন্য আমি এরসিন টাটারকে অভিনন্দন জানাচ্ছি। তুরস্ক তাকে ও দেশের মানুষদের সব ধরনের সাহায্য করে যাবে বলেও জানান তিনি।

নির্বাচনে জয়ের পর বিজয়ী বক্তব্যে তুর্কি প্রেসিডেন্ট এরদোগানকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন এরসিন টাটার। তিনি বলেন, আমরা আমাদের সার্বভৌমত্বের উপযুক্ত। আমরা উত্তর সাইপ্রাসের তুর্কি প্রজাতন্ত্রের মধ্যে থাকার জন্য লড়াই করছি। তাই দক্ষিণে আমাদের প্রতিবেশী ও বিশ্ব সম্প্রদায়ের উচিত স্বাধীনতার জন্য আমাদের লড়াইকে সম্মান করা। কারণ এটি আমাদের প্রাপ্য।

এদিকে, নির্বাচনে নিজের হার মেনে নিয়েছেন অ্যাকিনসি। রিপাবলিক অব সাইপ্রাসের সঙ্গে উত্তর সাইপ্রাসের মিলনের পক্ষে ছিলেন তিনি। অ্যাকিনসি বলেন, এই বারের নির্বাচন ঠিক স্বাভাবিক ছিলো না। তবে এই ফলে আমার ৪৫ বছরের রজনৈতিক জীবন শেষ হলো। আমি দেশের লোকের সৌভাগ্য কামনা করছি।

উত্তর সাইপ্রাসে ভোটদাতার সংখ্যা হলো দুই লাখ। গত সপ্তাহে প্রথম রাউন্ডে কেউই নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাননি।

এর আগে, ২০১৫ সালে ৬০ শতাংশ ভোট পেয়ে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছিলেন অ্যাকিনসি। দ্বিতীয় রাউন্ডে তার জয়ের সম্ভাবনা ছিলো। বিশেষ করে তৃতীয় স্থানে থাকা সোশ্যাল ডেমোক্র্যাট প্রার্থী এর্থুমান তাকে সমর্থন করার পর এই সম্ভাবনা বেড়ে যায়। তবে অ্যাকিনসি ছিলেন তুরস্কের রাজনৈতিক হস্তক্ষেপের বিরোধী। তিনি আগেই জানিয়েছিলেন যে, তাকে নিয়মিত হুমকি দেয়া হচ্ছে এবং প্রার্থীপদ প্রত্যাহার করতে বলা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, পূর্ব ভূমধ্যসাগরে গ্যাস অনুসন্ধান নিয়ে তুরস্কের সঙ্গে এখনো গ্রিসের সংঘাত অব্যাহত রয়েছে। এই অবস্থায় উত্তর সাইপ্রাস ও রিপাবলিক অব সাইপ্রাসের ভূমিকাও গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে। সে দিক থেকে দেখতে গেলে এই ফলাফল এরদোগানের পক্ষে স্বস্তির কারণ হবে।

সূত্র- বিবিসি, ডয়চে ভেলে

ডেইলি বাংলাদেশ/এসএমএফ