পায়জামা পড়লেই টাকা পাবেন!

পায়জামা পড়লেই টাকা পাবেন!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:০৪ ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

পু মুয়া নামে একটি পোশাক সংস্থা রয়েছে। ফরাসি ভাষায় পু মুয়া শব্দ দুটোর মানে আমার জন্য! আর সংস্থাটিও সব দিক থেকেই ভাবনা-চিন্তা করছে শুধু আপনারই জন্য!

অন্তত সংস্থার তরফে সম্প্রতি প্রকাশিত খবরে চোখ রাখলে তেমনটা বোঝা যাচ্ছে বেশ ভালই। যেমন খবর পাওয়া যাচ্ছে তাতে পোশাক প্রস্তুতকারী সংস্থা পু মুয়া আপাতত আপনাকে অর্থ দেবে সারা দিন ধরে শুধু নেটফ্লিক্স দেখার জন্য!

'পু মুয়া' মূলত পায়জামা তৈরি করে থাকে। আরামদায়ক কাপড় আর হালফিলের ফ্যাশনের সঙ্গে তাল রাখা ডিজাইন- এই দুইয়ের তাল মিলিয়ে গোটা বিশ্বে দুর্দান্ত ব্যবসা এবং ব্যাপক মুনাফা করে চলছে এই সংস্থা। তবে যত বড় সংস্থাই হোক না কেন, ক্রেতা স্বাচ্ছন্দ্যের ব্যাপারটা সবসময়ই মাথায় রাখতেই হয়।

পায়জামা

ফলে সেই লক্ষ্যেই নিজেদের পায়জামা কতটা আরামদায়ক ক্রেতাদের কাছে, সেটাই যাচাই করতে চাইছে 'পু মুয়া'। বুঝে নিতে চাইছে যে আরামের কথা মাথায় রেখে কয়জন তাদের ব্র্যান্ডের পোশাক কিনতে প্রস্তুত।

মহামারির সময় চার দেয়ালের মধ্যেই থাকতে হচ্ছে। সেই পরিস্থিতিতে সংস্থার তৈরি করা পায়জামা ক্রেতাকে কতটা স্বাচ্ছন্দ্য দিচ্ছে, সেটাই পরখ করতে চাইছে এই সংস্থা।

তাই 'পু মুয়া' সম্প্রতি বিজ্ঞাপন দিয়ে জানিয়েছে যে, এ কাজে তারা একজন কর্মী নিয়োগ করবে। বিশ্বের যে প্রান্তেই আপনি থাকুন না কেন, নিজের বাড়িতে বসেই এই কাজ করতে পারবেন হেসে-খেলে। সংস্থাটি লন্ডনের হলেও আপনার সেখানকার বাসিন্দা হওয়ার প্রয়োজন নেই। বিনিময়ে আপনি পাবেন ৩০০ ডলারের সামান্য বেশি!

পায়জামা

আবেদন করার আগে একবার জেনে নিন সংস্থার তরফে ঠিক করে দেয়া নিয়মগুলো কি। আপনাকে সোফা বা বিছানায় এক গেলাস ওয়াইন বা এক মগ হট চকোলেট হাতে ঘণ্টার পর ঘণ্টা 'পু মুয়া'-র পাজামা পরে কাটাতে হবে। মাঝে মাঝে রান্নাঘরে গিয়ে বানাতে হবে পছন্দের উষ্ণ পানীয়। সব মিলিয়ে সংস্থা আপনাকে দেবে ছয়টি পায়জামা। সেগুলো ঘুরিয়ে-ফিরিয়ে পরে পরে দেখতে হবে কতটা আরামদায়ক। সেই রিপোর্ট পেশ করতে হবে 'পু মুয়া'-কে।

ছয়টি পায়জামা এবং তা পরার জন্য বাড়তি টাকাও! বয়স যা-ই হোক না কেন, ১৮ বছরের উপরে হলেই আপনি এই কাজ পাওয়ার জন্য আবেদন করতে পারেন। তবে হ্যাঁ, খারাপ ব্যাপার একটাই- 'পু মুয়া' কিন্তু লটারির মাধ্যমে একজন কর্মীকে বেছে নেবে। 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএস