আজারবাইজানে ৪ হাজার যোদ্ধা পাঠিয়েছে তুরস্ক: আর্মেনিয়া

আজারবাইজানে ৪ হাজার যোদ্ধা পাঠিয়েছে তুরস্ক: আর্মেনিয়া

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৭:৪২ ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

আর্মেনিয়া ও আজারবাইজানের মধ্যে শুরু হওয়া যুদ্ধে বিচ্ছিন্ন নাগরনো-কারাবাখ অঞ্চলে বাকুর হয়ে ইয়েরেভানের বিপক্ষে লড়াইয়ের জন্য উত্তর সিরিয়ার থেকে ৪ হাজার যোদ্ধাকে আজারবাইজানে পাঠিয়েছে তুরস্ক।

সোমবার ইন্টারফেক্স নিউজ এজেন্সিকে এ তথ্য জানিয়েছেন রাশিয়ায় নিযুক্ত আর্মেনিয়ার রাষ্ট্রদূত।

আর্মেনিয়ার রাষ্ট্রদূত জানান, নাগরনো-কারাবাখের যুদ্ধে অংশ নিয়েছে যোদ্ধারা। অঞ্চলটি আজারবাইনের। কিন্তু আর্মেনিয়ার সহায়তায় দখল করে আছে আর্মেনিয়ো আদিবাসীরা।

আজারবাইজানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, যুদ্ধ শুরু পর এ পর্যন্ত তাদের ৬ বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে ১৯ জন।

আল-জাজিরা জানিয়েছে, বিচ্ছিন্ন নাগরনো-কারাবাখের তথাকথিত লাইন অব কনটাক্টে সংঘাত অব্যাহত হয়েছে। লড়াইয়ে গোলাবারুদ, রকেট এবং ড্রোন মোতায়েন করেছে দু’পক্ষ।

রোববার আমের্নিয়ার প্রকাশ করা একটি ভিডিওতে আজারবাইজানের একটি ট্যাংক ধ্বংস হতে দেখা যায়।

নাগরনো কারাবাখে ছড়িয়ে পড়া লড়াইয়ে গভীর উদ্বেগ জানিয়েছেন মার্কিন ডেমোক্র্যাট দলীয় প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী জো বাইডেন। দ্রুত সংঘাত বন্ধ, যুদ্ধবিরতি পুন:স্থাপন এবং আর্মেনিয়া-আজারবাইজানের মধ্যে পুনরায় আলোচনা শুরুর আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

এক বিবৃতিতে ট্রাম্প প্রশাসনকে শান্তিপূর্ণ সমাধানের লক্ষ্যে কূটনৈতিক প্রচেষ্টা ত্বরান্বিত এবং রাশিয়ার প্রতি উভয় পক্ষকে অস্ত্র সরবরাহ বন্ধের আহ্বান জানিয়েছেন সাবেক এ ভাইস প্রেসিডেন্ট।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, ওয়াশিংটন ওই অঞ্চলে যুদ্ধ বন্ধে চেষ্টা করবে। ‘বিষয়টি খুবই গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করছি আমরা।’ সংবাদ সম্মেলনে বলেন ট্রাম্প। ‘ওই অঞ্চলের অনেকের সঙ্গে আমাদের খুব ভালো সম্পর্ক রয়েছে। আমরা দেখছি; যদি যুদ্ধ থামানো যায়।’

নাগরেনো কারাবাখের কর্মকর্তা জানিয়েছেন, তাদের আরো ১৫ সেনা নিহত হয়েছে। যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩০ জনে। এর আগে বিচ্ছিন্ন অঞ্চলের নেতা অ্যারিয়াক হারুটিউয়ান জানিয়েছিলেন, যুদ্ধের তীব্রতা বাড়ার কারণে আজারবাইজানের সেনাবাহিনীর কাছে রোববার তাদের বাহিনী কিছু ভূমি হারিয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/মাহাদী