হোয়াইট হাউসে নোংরা কাপড়ের স্যুটকেস নিয়ে যান নেতানিয়াহু

হোয়াইট হাউসে নোংরা কাপড়ের স্যুটকেস নিয়ে যান নেতানিয়াহু

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২১:৪৮ ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০  

বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু

বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু

বেশিরভাগ রাজনীতিবিদ নিজেদের নোংরা জামাকাপড় লুকাতে অনেক কিছুই করেন। তবে এর পুরো বিপরীতে আছেন ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। বেশ কয়েক বছর ধরে হোয়াইট হাউসে স্যুটকেস ভর্তি নোংরা কাপড় নিয়ে যাওয়ার কারণে সেখানকার কর্মীদের মধ্য বেশ নাম অর্জন করেছেন তিনি।

হোয়াইট হাউসে এই ঘটনার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে মার্কিন গণমাধ্যম এ তথ্য জানিয়েছে।

জানা গেছে, ওয়াশিংটন ডিসিতে হোয়াইট হাউজের গেস্টহাউজে নোংরা কাপড় নিয়ে যান নেতানিয়াহু। বিনামূল্যে সেগুলো পরিষ্কার করার উদ্দেশ্যেই তিনি এমন কাজ করেন বলে জানিয়েছে গেস্টহাউজের কর্মীরা। কারণ সেখানে থাকা কূটনীতিকের নোংরা কাপড় বিনামূল্যে পরিষ্কার করে দেয় তারা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক মার্কিন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, একমাত্র নেতানিয়াহু দম্পতিই স্যুটকেস ভরে নোংরা কাপড় নিয়ে আসেন যাতে সেগুলো পরিষ্কার করা যায়। তাদের একাধিক সফরের পর বিষয়টি স্পষ্ট যে, তারা ইচ্ছা করেই নোংরা কাপড় নিয়ে আসেন।

আরেক মার্কিন কর্মকর্তা জানান, চলতি সফরে নোংরা কাপড়ের স্যুটকেস আনেননি নেতানিয়াহু দম্পতি। আগের সফরগুলোতে তারা নোংরা কাপড়ে ভরা সুটকেস নিয়ে আসতেন। এই মার্কিন কর্মকর্তা ওবামা প্রশাসনের সময় থেকে হোয়াইট হাউসে কর্মরত।

ইসরায়েলি কর্মকর্তারা এ খবরটি অস্বীকার করেছেন। তারা জানান, নেতানিয়াহু যুক্তরাষ্ট্রে অত্যধিক লন্ড্রি সেবা ব্যবহার করছেন কথাটি ভুল। এই অভিযোগকে অযৌক্তিক বলে অভিহিত করেছেন তারা। অতীতেও নেতানিয়াহু এ ধরণের লন্ড্রি সম্পর্কিত অভিযোগের লক্ষ্যবস্তু হয়েছিলেন বলেও জানান ওই কর্মকর্তারা।

এর আগে, ২০১৬ সালে তথ্য অধিকার আইনের আওতায় নেতানিয়াহুর অফিস ও ইসরায়েলের অ্যাটর্নি জেনারেল প্রধানমন্ত্রীর লন্ড্রি বিল জানতে চায়। সেসময়ে নিজের অফিস ও অ্যাটর্নি জেনারেলের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন তিনি। এমনকি বিচারকও ওই সময় নেতানিয়াহুর পক্ষে থাকার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন।

সূত্র- দ্য ওয়াশিংটন পোস্ট

ডেইলি বাংলাদেশ/এসএমএফ