চীন ও ভ্যাটিকানের ঐতিহাসিক চুক্তি নবায়নের প্রস্তুতিতে ক্ষুব্ধ যুক্তরাষ্ট্র

চীন ও ভ্যাটিকানের ঐতিহাসিক চুক্তি নবায়নের প্রস্তুতিতে ক্ষুব্ধ যুক্তরাষ্ট্র

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২০:৫৬ ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ২০:৫৬ ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

বিশপ নিয়োগ দেয়া সংক্রান্ত ঐতিহাসিক এক চুক্তির নবায়নের প্রস্তুতি নিচ্ছে চীন ও ভ্যাটিকান সিটি। দেশ দুইটির এমন পদক্ষেপে ক্ষুব্ধ যুক্তরাষ্ট্র।

মঙ্গলবার ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপি জানিয়েছে, এরইমধ্যে এ সিদ্ধান্তে সম্মতি জানিয়েছেন পোপ ফ্রান্সিস। চুক্তিটি এখনও পরীক্ষামূলক পর্যায়ে আছে। আরো দুই বছর এর মেয়াদ বাড়াতে চুক্তিটি নবায়ন করা হবে। বিষয়টির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট এক ঘনিষ্ঠ সূত্র জানিয়েছে, আগামী মাসেই চীন ও ভ্যাটিকান সিটি সমঝোতা চুক্তিতে স্বাক্ষর করতে পারে বলে আশা করা হচ্ছে।

এর আগে, গত সপ্তাহে চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ওয়েনবিন ইঙ্গিত করেছিলেন যে, ভ্যাটিকানের সঙ্গে চীনের সম্পর্ক ক্রমাগত আরো জোরালো হচ্ছে।

চীনের ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট দলের সঙ্গে সম্পর্ক শিথিল করার জন্য কঠোর পরিশ্রম করে চলেছেন পোপ ফ্রান্সিস। তবে চীনের বিরুদ্ধে ধর্মীয় স্বাধীনতার বিষয়টি নিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রচেষ্টার কারণে তার পদক্ষেপগুলো কিছুটা থমকে যায়। গত সপ্তাহে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও মার্কিন ধর্মীয় ম্যাগাজিন ফার্স্ট থিংস-এর একটি আর্টিকেলে চীনকে নিয়ে আক্রমণাত্মক মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, চীনে সব ধর্মের বিশ্বাসীদের সঙ্গে বীভৎস আচরণ করা হয়।

ওই আর্টিকেলে তিনি জানান, চীনের সরকার কর্তৃক মানবাধিকাকের তীব্র লঙ্ঘনের ঘটনায় অনেক দেশ বিদ্রোহ প্রকাশ করেছে। এরপর এক টুইটার পোস্টে পম্পেও লেখেন, ভ্যাটিকান তার নৈতিক কর্তৃত্বকে বিপন্ন করছে। চীনের সঙ্গে এর চুক্তি  কি নবায়ন করা উচিত হবে?

চীনে প্রায় এক কোটি ২০ লাখ ক্যাথলিকের বসবাস। দশকের পর দশক ধরে তারা সরকারি বিভিন্ন অ্যাসোসিয়েশন দ্বারা বিভাজিত ছিলো। দেশটিতে কমিউনিস্ট পার্টির মাধ্যমেই বিশপ নির্বাচন করা হতো। দীর্ঘদিন ধরে আলোচনার পর ২০১৮ সালের ২২ সেপ্টেম্বর চীনের সঙ্গে একটি অস্থায়ী চুক্তি করে ভ্যাটিকান। তবে দেশ দুইটির মধ্যে শীতল সম্পর্ক চলতে থাকায় এর মেয়াদ বাড়ানো নিয়ে আলোচনা সাময়িকভাবে থমকে যায়।

সূত্র- আল জাজিরা

ডেইলি বাংলাদেশ/এসএমএফ