ডিমের চেয়ে বেশি প্রোটিন এসব ভেষজ উপাদানে

ডিমের চেয়ে বেশি প্রোটিন এসব ভেষজ উপাদানে

স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৭:৩৮ ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ১৭:৪১ ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০

ছবি:  ডিমের থেকেও বেশি প্রোটিন রয়েছে এসব ভেষজ উপাদানে

ছবি: ডিমের থেকেও বেশি প্রোটিন রয়েছে এসব ভেষজ উপাদানে

ডিমকে বলা হয় প্রোটিনের ভাণ্ডার। কেননা একটি ডিম শরীরের অনেকখানি প্রোটিনের ঘাটতি পূরণ করে। তবে অনেকেই ডিম খেতে পছন্দ করেন না। এতে কিছুটা প্রোটিনের ঘাটতি হলেও তা অন্যভাবে পূরণ করতে পারেন। 

এক্ষেত্রে শরীরে প্রোটিনের ঘাটতি মেটাতে আপনাকে সাহায্য করতে পারে কিছু ভেষজ উপাদান। অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি, সেসবে প্রোটিন রয়েছে ডিমের থেকেও বেশি। জেনে নিন কী কী ভেষজ খেতে পারেন- 
 
ছোলা 
একটি ডিমে ৬ গ্রামের মতো প্রোটিন থাকে। কিন্তু ছোলায় থাকে তার থেকেও বেশি প্রোটিন। আধা কাপ ছোলায় প্রায় ৮ গ্রাম প্রোটিন থাকে। এটি স্বাস্থ্যের পক্ষেও ভীষণ উপকারী। 

মসুর ডাল

বাঙালির পাতে ডাল ছাড়া চলেই না। প্রায় প্রতিদিনই মসুর ডাল প্রায় সব বাড়িতেই রান্না হয়। প্রোটিনের খুব ভালো উৎস এই মসুর ডাল। আধা কাপ ডালে প্রায় আট গ্রাম প্রোটিন থাকে। অন্যান্য ডালের তুলনায় এটি রান্না হয় তাড়াতাড়ি।

মিষ্টি কুমড়ার বীজ

সাধারণত মিষ্টি কুমড়ার বীজ ফেলে দেয়া হয়। এতে কিন্তু ডিমের থেকেও বেশি প্রোটিন রয়েছে। এবার থেকে আর ফেলবেন না। বরং নিয়মিত খেতে পারেন কুমড়ার বীজ। কারণ কুমড়ো এবং কুমড়ার বীজ শরীরের জন্য বেশ উপকারী। ৩০ গ্রাম কুমড়া বীজে আট গ্রামের বেশি প্রোটিন থাকে। এছাড়া থাকে আয়রন, জিঙ্ক, কপার, ম্যাগনেসিয়াম, পটাসিয়াম ও সেলেনিয়াম।

আরো পড়ুন: ওজন কমাতে গোলমরিচের চা কতটা কার্যকরী   

আমন্ড বাটার 

আমন্ডের পাশাপাশি এর মাখনও প্রোটিনের ভালো উৎস। ২ বড় চামচ এই বাটারে ৭ গ্রাম প্রোটিন আছে। ব্যায়াম শুরুর আগে শক্তি জোগায় এই খাবার। এর সঙ্গে দারুচিনি, জায়ফল, ভ্যানিলা বা কারি পাউডার মিশিয়েও খেতে পারেন।

সাবুদানা

সাবুদানা আমাদের শরীরের জন্য ভীষণ উপকারী। এককাপ সাবুদানায় প্রায় ৭ গ্রাম প্রোটিন থাকে। এছাড়াও রয়েছে প্রচুর ফাইবার। সাবুদানা গ্লুটেন ফ্রি। চালের মতো করে রান্নাও করতে পারেন, আবার সালাদের সঙ্গেও খেতে পারেন। তবে বেশি খাওয়া যাবে না সাবুদানা। বেশি ক্ষেলে বেড়ে যেতে পারে ইউরিক অ্যাসিডের মাত্রা। বিশেষজ্ঞরা বলেন, প্রোটিন সাপ্লিমেন্ট খাওয়ার বদলে প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার খাওয়া শরীরের পক্ষে বেশি উপকারী।

ডেইলি বাংলাদেশ/কেএসকে