আজ বিশ্ব গণ্ডার দিবস

আজ বিশ্ব গণ্ডার দিবস

ফিচার ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ০৯:৫২ ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

প্রতি মাসের নির্দিষ্ট কিছু দিনে বিভিন্ন দেশে কিছু দিবস পালিত হয়। ঐ নির্দিষ্ট দিনে অতীতের কোনো গুরুত্বপূর্ণ ঘটনাকে স্মরণ করা বা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে জনসচেতনতা তৈরি করতেই এই সব দিবস পালিত হয়। পালনীয় সেই সব দিবস গুলোর মধ্যে একটি হলো বিশ্ব গণ্ডার দিবস।

সারা বিশ্বজুড়ে যেভাবে চোরাশিকারের জন্য বন্যপ্রাণীর ক্ষতি হচ্ছে তার থেকে গন্ডারদের রক্ষা করার জন্য বিশ্ব গণ্ডার দিবস পালিত হয়। প্রতি বছর ২২ সেপ্টেম্বর বিশ্ব গন্ডার দিবস পালিত হয়। বিভিন্ন দেশের সরকার, এনজিও, চিড়িয়াখানা এবং সাধারণ মানুষ মিলে এই দিনটি পালন করে। 

২০১০ সালে ওয়ার্ল্ড ওয়াইল্ড লাইফ ফান্ড সাউথ আফ্রিকা ২২ সেপ্টেম্বরকে বিশ্ব গন্ডার দিবস হিসেবে ঘোষণা করে। তারপর থেকে প্রতিবছর ঐ দিনটিতে বিশ্ব গন্ডার দিবস পালিত হয়ে আসছে। সব বন্য প্রাণীদের মধ্যে গন্ডার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ প্রাণী। 

সারা বিশ্বজুড়ে পাঁচ ধরনের গন্ডার হয়, আফ্রিকায় পাওয়া যাওয়া সাদা এবং কালো গন্ডার, একশৃঙ্গ গন্ডার এবং জাভা ও সুমাত্রায় পাওয়া যাওয়া এশিয়ান গন্ডারের প্রজাতি। এইসব বিপন্ন প্রজাতির গন্ডারদের বাঁচানোর জন্য এই দিনটি বিশেষভাবে গুরুত্বপূর্ণ। 

গন্ডারদের বাঁচানোর জন্য সামাজিক মাধ্যমকেও একটি বড় হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করা হয়। এই দিনটি একেকটি দেশে একেক রকম ভাবে পালিত হয়। নানান অনুষ্ঠানের আয়োজন করা, সেমিনার, বক্তৃতা এবং বিতর্ক সভার আয়োজন করা, স্কুল কলেজের ছাত্রদের এ ব্যাপারে ওয়াকিবহাল করা এবং নানান প্রকল্প আয়োজন করা, চিত্র প্রদর্শনী মিছিল এবং স্বল্প দৈর্ঘ্যের চলচ্চিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করা, পোস্টার বিলি করা ইত্যাদি। 

প্রাকৃতিক বিপর্যয়, চোরাশিকার এবং নানা কারণে গন্ডারের প্রাণ সংশয় হয়ে থাকে এই কারণে তাদের প্রজাতি ধীরে ধীরে অবলুপ্তির পথে এগিয়ে চলেছে তাই তাদের সংরক্ষণ সঠিকভাবে না করলে ভবিষ্যতে হয়তো গন্ডার প্রজাতি বিলুপ্ত হয়ে যাবে। এই কারণেই তাদের সংরক্ষণ করার জন্য মানুষের মধ্যে সচেতনতা বাড়াতে বিশ্ব গন্ডার দিবস নানা কর্মকাণ্ডের মধ্যে দিয়ে পালিত হয়।

এরই মধ্যে এই প্রকল্পে খুব ভালো ফল পাওয়া গেছে। আগের চেয়ে গন্ডারের সংখ্যা এখন অনেকটাই বেড়েছে বলে মনে করা হচ্ছে এবং ভবিষ্যতেও এই সংরক্ষণ এবং সচেতনতার মাধ্যমে গন্ডার প্রজাতিকে রক্ষা করা যাবে বলেই মনে করা হয়। 

ডেইলি বাংলাদেশ/এসএ