২০ বছর ধরে পানি না পান করে বেঁচে আছেন তিনি

২০ বছর ধরে পানি না পান করে বেঁচে আছেন তিনি

ফিচার ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১১:৪৭ ২৪ জুন ২০২২  

অ্যান্ডি কুরি। ছবি: সংগৃহীত

অ্যান্ডি কুরি। ছবি: সংগৃহীত

পানির অপর নাম জীবন। পানি ছাড়া আমাদের জীবন ধারণ কোনোভাবেই সম্ভব নয়। আমাদের শরীরের ৩ ভাগের ২ ভাগই পানি। যেসব খাদ্য প্রতিদিন আহার করছি- মাছ, মাংস, দুধ, ডিম, ভাত, রুটি, শাকসবজি, ফলমূল সবকিছুর মধ্যেই পানি রয়েছে।

একজন সুস্থ সবল স্বাভাবিক মানুষ পানি ও খাদ্য ছাড়া বাঁচতে পারবে মাত্র ১০ থেকে ১২ দিন। আর শুধু পানি ছাড়া বাঁচতে পারবে ৬ থেকে ৮ সপ্তাহ পর্যন্ত। তবে কখনো কি শুনেছেন মানুষ পানি না খেয়ে ২০ বছর পার করেছে। কি বিশ্বাস হচ্ছে না? বিশ্বাস না হলেও এমনটাই করেছেন যুক্তরাজ্যের একজন সুপার মার্কেট কর্মী। 

অ্যান্ডি কুরিতিনি ২০ বছর যাবত পানি পান না করে বেঁচে আছে। তিনি পানির পরিবর্তে পেপসি পান করে বেছে আছেন। ঐ ব্যক্তির নাম অ্যান্ডি কুরি। বয়স ৪১ বছর। অ্যান্ডি কুরি নামে ঐ ব্যক্তি ২০ বছর ধরে প্রতিদিন ১০ লিটার পর্যন্ত পেপসি পান করেছেন। তিনি তার এ অভ্যাসটিকে হিপনোথেরাপির মাধ্যমে পরিবর্তন করতে সক্ষম হয়েছে। 

কুরি দৈনিক ৩০ ক্যান পর্যন্ত পেপসি পান করতেন। আর এর জন্য তার প্রতিদিন ২০ পাউন্ড খরচ হত, যা বছরে ৭ হাজার পাউন্ড বা ১ কোটি ৯০ লাখ ডলার। ২০ বছরে তিনি পেপসির আনুমানিক ২১৯,০০০ ক্যান চুমুক দিয়েছিলেন, যা প্রায় ৮,০০০ কেজি চিনির সমান।

কুরি দৈনিক ৩০ ক্যান পর্যন্ত পেপসি পান করতেনকুরি বলেন, তিনি সবসময় ঠান্ডা পেপসি পান করতে পছন্দ করতাম। তিনি রাতে কাজ করেন, তাই প্রতিদিন চার বা পাঁচটি দুই লিটার বোতলের পেপসি পান করত। পেপসিতে থাকা চিনি তাকে সারা রাতজেগে কাজ করার এ্যানার্জি যোগাতো। 

দীর্ঘদিন পেপসি খাওয়ায় কুরির দেহের ওজন ২৬৬ পাউন্ড বেড়ে যায় এবং ডাক্তর তাকে ডায়াবেটিস হওয়ার ঝুঁকি সম্পকে সতর্ক করে। এরপর তিনি অভ্যাসটিকে পরিবর্তন করতে কাজ করে। ব্যায়াম এবং ডায়েটের মাধ্যমে ২৮ পাউন্ড কমিয়েছেন তিনি, তবে পেপসি পান করা বন্ধ করতে পারেননি। 

অ্যান্ডি কুরিযুক্তরাজ্যের ঐ ব্যক্তি বলেছিলেন যে তিনি তখন লন্ডন-ভিত্তিক থেরাপিস্ট এবং সম্মোহনবিদ ডেভিড কিলমুরির সঙ্গে যোগাযোগ করেন। আশ্চর্যজনকভাবে, মাত্র একটি অনলাইন সেশনের পরে, মিঃ কুরি দুই দশকের মধ্যে প্রথমবার পানি পান করতে পারেন। এর পর চার সপ্তাহে তিনি আরো ১৪ পাউন্ড ওজন কমিয়েছেন এবং উল্লেখযোগ্যভাবে আরো সুস্থ আছেন।

সূত্র: ডেইলি মেইল 

ডেইলি বাংলাদেশ/এসএ