ত্রুটিপূর্ণ শিশুদের নৃশংসভাবে হত্যার পর দেবতাকে উৎসর্গ করে এই জাতি

ত্রুটিপূর্ণ শিশুদের নৃশংসভাবে হত্যার পর দেবতাকে উৎসর্গ করে এই জাতি

ফিচার ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:৪৩ ২৪ জানুয়ারি ২০২১   আপডেট: ১১:০৪ ২৫ জানুয়ারি ২০২১

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম মহাদেশ আফ্রিকা। আর এই আফ্রিকাতে উপজাতির সংখ্যা উল্লেখযোগ্যভাবে বেশি। আরবোরে, কারো, কনসো, দাসনেটেক এগুলো ইথিওপিয়ার উল্লেখযোগ্য কয়েকটি উপজাতি যেগুলো পর্যটকদের কাছে যথেষ্ট আকর্ষণীয় উপাদান।

আর এই উপজাতিদের সন্ধান পাওয়া যায় ইথিওপিয়ার ওমো ভ‍্যালিতে। নিম্ন ওমো ভ‍্যালিকে গণ‍্য করা হয় আফ্রিকার সংস্কৃতি ও একাধিক উপজাতি সম্প্রদায়ের অন‍্যতম পীঠস্থান হিসেবে। অনেকে ওমোকে মানবজাতির জন্মস্থান বলেও বর্ণনা করেন। কোনো পর্যটক যদি উপজাতিদের প্রতি দয়ালু ও উদার হন, তবে তারাও তাদের গ্রামে সেই পর্যটককে আমন্ত্রণ জানিয়ে থাকে।

আফ্রিকান উপজাতিওমো ভ‍্যালির প্রধান বাজার কায়াফার মার্কেট, যেখানে ১১টি উপজাতি জিনিসপত্র বেচাকেনা করে। এখানে গবাদি পশু বিশেষত গরু কেনাবেচা হয়। এর মধ‍্যে কিছু গরু এবং বলদ মাঠে চাষের কাজে ব‍্যবহৃত হয়, কিছু দুধ দেয়। আর হতভাগ‍্য পশুগুলোর মাংস এই কায়াফার মার্কেটেই বিক্রি হয়। ইথিওপিয়ার সবচেয়ে উৎকৃষ্ট পশুর মাংস এই বাজারেই পাওয়া যায়। 

এই কাঁচা মাংসের কিছু হয় কিটফো বা সরাসরি গরুর মাংস, কিছু শানিয়া বা গরুর কুঁজের কাঁচা মাংস। ওমো ভ‍্যালিতে একটি আশ্চর্য এবং ভীতিপ্রদ নিয়ম আছে। এর নাম মিঙ্গেই। এই নিয়মের সঙ্গে নৃশংস শিশুহত‍্যা যুক্ত। যেসব শিশুর জন্মের সময়ে কিছু দুর্বলতা থাকে, সেসব শিশুকে কোপা নামক পবিত্র স্থানে হাত ও পা চামড়ায় জড়িয়ে, মুখ ও কান মাটি, গোবর ও মাখন দিয়ে আটকে তাদের দেবতার কাছে উৎসর্গ করা হয়।

সেখানকার বাজার ইথিওপিয়ার সরকার বর্তমানে কিছু এনজিওর সঙ্গে যুক্ত হয়ে এই নৃশংস নিয়ম বন্ধ করার প্রচেষ্টা করছেন। তারা সঠিক সময়ে কোপায় পৌঁছে এইসব অসহায় শিশুর প্রাণ বাঁচানোর চেষ্টা করছেন। বাজারের অন‍্য প্রান্তে তাজা ফসল, ওষুধ, মধু এবং দু প্রকার মাখন প্রস্তুত হয়। একপ্রকার রান্নায় ব‍্যবহৃত হয় এবং আরেক প্রকার হ‍্যামার নামক উপজাতিদের চুল পরিচর্যার জন‍্য লালমাটির সঙ্গে মেশানো হয়। 

এই হ‍্যামার উপজাতি প্রধানত রুবি হেয়ার লকসের জন‍্যই বিখ‍্যাত। ওমো ভ‍্যালির এই বাজারটি প্রায় ২১০০ বছরের পুরোনো। এই বাজারে বিভিন্ন উপজাতির পরস্পর মেলবন্ধন দেখতে পাওয়া যায়। উপজাতি নারীদের বিনোদনেরও জায়গা এই বাজার।

তাদের ঘরগুলো এভাবে তৈরি করে বিভিন্ন উপজাতির মানুষদের মধ‍্যে কাঁধে স্পর্শ করে বা আঙুল ছুঁইয়ে পরস্পরকে অভিবাদন জানানোর যে রীতি তাও চাক্ষুস করা সম্ভব এই বাজারে। সুতরাং পর্যটকরা যদি আদিম উপজাতির জীবনযাপন ও সংস্কৃতি বিষয়ে আগ্রহী হন তবে ইথিওপিয়ার ওমো ভ‍্যালি হতে পারে সেরা ঠিকানা।

ডেইলি বাংলাদেশ/কেএসকে