হাত-পা ছাড়াই কারাতে চ্যাম্পিয়ন ইউসুফ

হাত-পা ছাড়াই কারাতে চ্যাম্পিয়ন ইউসুফ

ফিচার ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১২:১৩ ১৮ জানুয়ারি ২০২১   আপডেট: ১২:১৮ ১৮ জানুয়ারি ২০২১

ছবি: ইউসুফ আবু আমিরা

ছবি: ইউসুফ আবু আমিরা

মানুষ কঠোর পরিশ্রম, অধ্যাবসায় আর মনোবল দিয়েই পৃথিবী জয় করেছে। এর অনেক প্রমাণ রয়েছে আমাদের সমাজে। এমনকি জন্মগতভাবে কিংবা দুর্ঘটনাজনিতভাবে অনেকেই শরীরের একটি অঙ্গ হারিয়ে জয় করেছেন পৃথিবী।

স্বাভাবিক মানুষের চেয়েও তারা ভালোভাবে জীবনযাপন করেন। এমন অনেকের কথাই তো জেনেছেন। আজ এমন একজন অদম্য মনোবলের মানুষের কথা জানাবো যিনি মনের জোড়েই নানা প্রতিকূলতা অতিক্রম করে বিশ্ব জয় করেছেন। নাম তার ইউসুফ আবু আমিরা।

ইউসুফ আবু আমিরাফিলিস্তিনের একটি আইন স্কুল থেকে গ্রাজুয়েশন করেছেন ইউসুফ আবু আমিরা। ১৯৯৭ সালে জন্ম তার। জন্ম থেকেই তার দুই পা বিহীন, হাত আছে, কিন্তু সেই হাত দুটোও আংশিক, পরিপূর্ণতা পায়নি। তবে 'প্রাণের পেয়ালা' হরদম ভরপুর আবু আমিরার। তাই অবসরে আত্মরক্ষা কৌশল কারাতে অনুশীলন করেন গাজা শহরের একটি ক্লাবে।

শরীরের এমন অবস্থায় কারাতের মতো কঠিন যুদ্ধকলা প্রশিক্ষণে আগ্রহী হওয়া বিষয়ে তিনি বলেন, নিজের আত্মরক্ষার জন্য আমি কারাতে শিখতে চাইতাম। গাজার এক রিফিউজি ক্যাম্পের বাসিন্দা ইউসুফ বিশেষভাবে তৈরি একটি স্কুটারে চড়ে চলাচল করেন। গত বছর ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অব গাজার 'কলেজ অব শরিয়া অ্যান্ড ল' থেকে স্নাতক করেছেন।

ইউসুফ আবু আমিরাকারাতের আন্তর্জাতিক চ্যাম্পিয়নশিপে অংশ নেয়ার স্বপ্ন দেখেন ২৪ বছর বয়সী ইউসুফ। নিয়মিত কঠোর অনুশীলনের মাধ্যমে তিনি শত্রুর মুখে বিদ্যুৎগতিতে পাঞ্চ মারা রপ্ত করেছেন বেশ ভালোভাবেই। তার ওস্তাদ জানান, অন্য লেভেলের অন্য কারাতেকাদের চেয়ে সে অনেক ভালো। 

ইউসুফ আরো শিখেছেন নিজের হাত বা শরীর দিয়ে প্রতিপক্ষের হামলা ঠেকানোর কৌশল। প্রশিক্ষক হাসান আল-রয় তার এই বিশেষ ছাত্র সম্পর্কে বলেন, আমি ইউসুফের একের পর এক কৌশল দেখে অবাক হয়ে যাই। সে অন্যদের তুলনায় অনেক উন্নততর। তবে বিশ্বাস করুন এর জন্য সে কঠোর পরিশ্রম করেছে।

ইউসুফ আবু আমিরাবর্তমানে অরেঞ্জ বেল্টধারী কারাতেকা ইউসুফের মার্শাল আর্টের কলা প্রদর্শন এবং লড়াই অদ্ভূত এবং অসাধারণ যা দর্শকদের মুগ্ধ করে। রয়টার্স জানিয়েছে, ইউসুফ গাজার আল-মাশাল ক্লাবে নিয়মিত তার কোচের সঙ্গে মার্শাল আর্টের অনুশীলন করেন। 

রয়টার্সকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে আবু আমিরা বলেন, আমি নিজেকে পৃথিবীর সামনে প্রমাণ করতে চেয়েছিলাম, চেয়েছিলাম বোঝাতে শরীরের শক্তির থেকে মনের শক্তি অনেক বড় এবং মনের শক্তি দিয়ে কোনো কিছুই অসম্ভব নয়।

ইউসুফ আবু আমিরাতিনি আরো বলেন, আমি কারাতে করেছি যাতে করে আমি নিজেকে রক্ষা করতে পারি, এবং আমি স্বপ্নেও ভাবতাম জাতীয় চ্যাম্পিয়নশিপে নিজেকে দেখার। হাত-পা না থাকার পরেও তিনি শক্তভাবে ঘুষি মারার কৌশল জব্দ করতে পেরেছিলেন। তার কোচ হাসান আল-রাই জানান, আবু আমিরার চোখে তিনি জেতার দৃঢ় সঙ্কল্প দেখতেন।

ইউসুফ আবু আমিরাপা-হীন, হাত প্রায় নেই অবস্থায়ও কারাতের মতো কঠিন কসরতে দক্ষতা অর্জনের বিষয়ে ইউসুফ আরো বলেন, আমি দুনিয়ার সামনে শুধু এটা প্রমাণ করতে চেয়েছিলাম যে কমতি শুধু মানুষের মনোমস্তিষ্কে থাকে, শরীরে নয়!

ডেইলি বাংলাদেশ/কেএসকে