ইউরোপিয়ানদের বাক্সের মধ্যে ঘুমানোর রহস্য

ইউরোপিয়ানদের বাক্সের মধ্যে ঘুমানোর রহস্য

ফিচার ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:২৩ ২৮ মে ২০২০   আপডেট: ১৬:৩১ ২৮ মে ২০২০

ছবি: প্রতীকী

ছবি: প্রতীকী

ঘুমানোর জন্য সবাই নিরিবিলি একান্ত পরিবেশ চায়। তবে অতীতে ঘুমানোর সময় এমন নিরব পরিবেশ বজায় রাখার বিষয়টি ছিল না বললেই চলে। অসংখ্য দরিদ্র পরিবার একটি কিংবা দুটি ঘরের মধ্যেই বাস করত। অতিথি আসলেও একই ঘরে ঘুমাত। এমনকি বড় বাড়ি এবং রাজ প্রাসাদেও মনিব এবং ভৃত্য একই ঘরে ঘুমানোর অস্বাভাবিক ছিল না। 

বিখ্যাত লেখক বিল ব্রায়সন তার ‘এ্যাট হোম’ গ্রন্থে লিখেছেন, রাজা পঞ্চম হেনরি এবং রানি ভেলোইসের ক্যাথরিনের শয়ন কক্ষও খুব একান্ত ছিল না। তাদের কক্ষ পর্দা দিয়ে বিভক্ত করা ছিল এবং অন্য পাশে দু’জন রাজ কর্মচারী থাকত। সেই সময়ের প্রেক্ষাপটে নিজের একান্ত কিংবা গোপনীতা রক্ষার জন্য বক্স বেড ভালো সমাধান ছিল।

মধ্যযুগে স্কটল্যান্ড, ফ্রান্স, নেদারল্যান্ডস এবং যুক্তরাজ্যের বেশ কিছু গ্রামে বাক্সবন্দী বিছানায় ঘুমানোর রীতির প্রচলন ঘটে। মূলত বড় কাঠের আলমারি আকৃতির কাঠামোর মধ্যে বিছানার ব্যবস্থা করা হত। বাক্স বিছানার দরজা থাকত।

বক্স বেডযে কারণে একই ঘরে একাধিক মানুষ থাকলেও বাক্সবন্দী বিছানায় একান্ত পরিবেশে ঘুমানো সম্ভব ছিল। কিছু বক্স বেড আসবাবপত্রের মতো আলাদা কাঠামোতে নির্মাণ করা হত। আবার কিছু বাড়ির মূল কাঠামোর সঙ্গে সংযুক্ত করেও নির্মাণের প্রচলন ছিল। 

বক্স বেডে অনেক সময় দরজার প্যানেলের পরিবর্তে পর্দা দেয়া হত। ফলে ভিতরে আরামদায়ক পরিবেশ বজায় থাকত। একান্ত পরিবেশে ঘুমানো বাদেও বক্স বেড তৈরির ক্ষেত্রে আরো কয়েকটি সুবিধার কথা বিবেচিত হয়েছিল বলে ধারণা করা হয়। 

শীতের সময় এর ভিতরে স্বাভাবিকভাবেই উষ্ণ পরিবেশ বজায় থাকত। ঘরে কোনো হিংস্র প্রাণী প্রবেশ করলেও সুরক্ষা পাওয়া সম্ভব ছিল। এছাড়া কৃষকরা ক্ষেতে কাজ করতে যাওয়ার সময় বক্স বেডের মধ্যে বাচ্চাদের নিরাপদে রেখে যেতে পারত। 

বিভিন্ন নকশায় তৈরি করা হত বক্স বেড১৮৩৩ সালে প্রথম প্রকাশিত এনসাইক্লোপিডিয়া অব কটেজ, ফার্মহাউজ অ্যান্ড ভিলা আর্কিটেকচার অ্যান্ড ফার্নিচার এর বর্ণনা অনুযায়ী, বক্স বেডের নিচে একটি বা দুটি শেলভ থাকত। এর উপর এবং বিপরীত দিকেও শেলভ থাকত যেগুলো ওয়ারড্রব এর মতো ব্যবহার করা যেত। 

বক্স বেডে ঘুমানো ছাড়াও অনেকেই মূল্যবান বস্তুও নিরাপদে রাখতে পারত। বাইরে কাজে যাওয়ার সময়ও সেখানে মূল্যবান বস্তুগুলো তালাবদ্ধ করে সুরক্ষিত অবস্থায় রাখা সম্ভব ছিল। মধ্যযুগের শেষ দিকে বক্স বেড একটি মার্জিত আসবাবপত্র হিসেবে বিবেচিত হত। 

এমনকি যাদের অনেক বড় বাড়ি ছিল তারাও এটি ব্যবহার করত। ১৮ শতকে অনেক আসবাবপত্র নির্মাতারা গোপনে বক্স বেড তৈরি করত। তারা সুকৌশলে ওয়ারড্রব, বুকশেলভ এবং ড্রয়ারের সারির পেছনে বক্স বেড তৈরি করত। কেউ ইচ্ছা করলে নিজেকে আড়াল করেই সেখানে ঘুমাতে পারত। 

বাতাস চলাচলে স্বল্পতা এবং অন্যান্য স্বাস্থ্যবিধির জন্য ১৯ শতকে বক্স বেডের ব্যবহার ধীরে ধীরে বন্ধ হয়ে যায়। তবে ২০ শতকের প্রথম দশকেও স্কটল্যান্ডের অনেক জায়গায় বক্স বেডের প্রচলন ছিল।   

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএমএস