আমার ছেলে ড্রাগস নিতে পারে, মেয়ে নিয়ে ঘুরতে পারে: শাহরুখ খান

আমার ছেলে ড্রাগস নিতে পারে, মেয়ে নিয়ে ঘুরতে পারে: শাহরুখ খান

বিনোদন ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২১:৪৩ ৩ অক্টোবর ২০২১  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

রোববার সকালেই রীতিমতো শোরগোল পড়ে গিয়েছে বলিউডে। মাদককান্ডে নাম জড়িয়েছে শাহরুখ খানের পুত্র আরিয়ান খানের। মুম্বাইয়ের একটি প্রমোদতরীতে মাদক সেবনের পার্টি করছিলেন আরিয়ান। সেই পার্টি থেকেই গতকাল রাতে তাকে হাতেনাতে ধরে ন্যাশনাল কন্ট্রোল ব্যুরো (এনসিবি)। কিং খানের ছেলে বলে কথা! এই খবরে ভারত ছাড়াও বিভিন্ন দেশে শোরগোল পড়ে গিয়েছে।

তবে ছেলের মাদকসেবন সম্পর্কে কি ভাবেন শাহরুখ? ছেলের এই কাণ্ডকারখানায় তিনি আদেও বিন্দুমাত্র বিচলিত হয়েছেন কি? তেমনটা কিন্তু মনে করছেন না নেটিজেনরা। কারণ শাহরুখ তো আজ থেকে প্রায় ২৩ বছর আগে ভবিষ্যদ্বাণী করে বলেই দিয়েছিলেন, ছেলে মাদকাসক্ত হোক বা চরিত্রহীন, তিনি সেই নিয়ে বিন্দুমাত্র বিচলিত হবেন না!

সেদিন ঠিক কী বলেছিলেন শাহরুখ? শাহরুখ এবং গৌরি খান তখন তাদের প্রথম সন্তান আরিয়ান খানের জন্ম দিয়েছেন। ছেলের জন্মের পর একটি সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে শাহরুখ রসিকতা করে বলেন, আমার ছেলে মাদকে আসক্ত হোক, শরীরী সম্পর্কে লিপ্ত হোক, প্রেম করুক। যা আমি আমার তারুণ্যে করতে পারিনি, সে সব কিছু যেন করতে পারে। আমি চাই, ছেলের বিরুদ্ধে অভিযোগ আসুক মেয়েদের বাবাদের তরফে।

শাহরুখের সে কথাই কি তাহলে অক্ষরে অক্ষরে মেনে চলছে তার ছেলে? শনিবার রাতে মুম্বাই থেকে গোয়াগামী একটি প্রমোদতরীতে মাদকপার্টি চলছে বলে খবর পেয়ে সেখানে তদন্ত চালিয়ে আরিয়ানসহ ১০ জনকে গ্রেফতার করেছে এনসিবি। ওই পার্টিতে নিষিদ্ধ মাদক সেবন চলছিল। শাহরুখপুত্র ছাড়াও ফ্যাশন ইন্ডাস্ট্রির নামিদামি তারকারাও উপস্থিত ছিলেন ওই পার্টিতে।

শনিবার রাতে আরিয়ানকে গ্রেফতার করার পর জেরা করা হয় তাকে। জেরার মাঝে আরিয়ান স্বীকার করে নেয় সে মাদক সেবন করেছিল। একইসঙ্গে আরিয়ান জানিয়েছে সেই এর আগে কখনো মাদক সেবন করেনি। আরিয়ানকে জেরা করে জানা গিয়েছে, সে ওই মাদক পার্টিতে ভিভিআইপি সদস্য ছিল। এমন পার্টিতে ভিভিআইপি সদস্যদের প্রবেশমূল্য দিতে হয় না। উল্লেখ্য, পার্টির প্রবেশমূল্য ছিল ১ লাখ টাকা।

আরিয়ানকে জেরা করার পাশাপাশি তার হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট খতিয়ে দেখা হয়েছে। সে তার বন্ধুদের সঙ্গে কী কথা বলতো, হোয়াটসঅ্যাপের গ্রুপে কী নিয়ে আলোচনা চলতো সব খতিয়ে দেখা হচ্ছে। আরিয়ান কোনো মাদকচক্রের সঙ্গে জড়িত কিনা, তাও খতিয়ে দেখছেন এনসিবি কর্তারা। এই তদন্তে আরিয়ানের বিরুদ্ধে কোনো তথ্য উঠে আসলে ‘নারকোটিক ড্রাগস অ্যান্ড সাইকোট্রপিক সাবস্ট্যান্সেস’ (এনডিপিএস) আইনে শাহরুখপুত্রের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হতে পারে।

এনসিবির অধিকর্তারা জানিয়েছেন, এদিন যাদের আটক করা হয়েছে তাদের মধ্যে ছিলেন ২ জন মহিলা। তাদের নাম-পরিচয় প্রকাশ করা না হলেও তারা দিল্লীর বাসিন্দা বলে জানা গিয়েছে। ওই প্রমোদতরীর ঘর থেকে নেশা করার কাগজ পাওয়া গিয়েছে। এছাড়াও প্রমোদতরী থেকে যে পরিমাণে মাদক উদ্ধার করা হয়েছে তা সন্দেহভাজনদের গ্রেফতার করার জন্য যথেষ্ট বলে জানাচ্ছে এনসিবি।

পার্টিতে যারা শুধু মাদক সেবন করেছেন কিন্তু লেনদেন করেননি তাদের এনডিপিএস কোর্টে তোলা হবে। যদি তাদের ব্যবহৃত মাদকের পরিমাণ কম হয় তাহলে তারা জামিন পেতে পারেন। ছেলে এনসিবির হাতে ধরা পরতেই লের জন্য বিখ্যাত আইনজীবী সতীশ মানশিণ্ডেকে নিয়োগ করে ফেলেছেন শাহরুখ খান। আইনজীবী এবং তার প্রতিনিধিরাও এনসিবির দফতরে গিয়েছেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/টিএএস