অমিতাভের সিনেমায় ফের চঞ্চল, সঙ্গে পূর্ণিমা

অমিতাভের সিনেমায় ফের চঞ্চল, সঙ্গে পূর্ণিমা

বিনোদন প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:৩৬ ১৫ জানুয়ারি ২০২১  

চঞ্চল চৌধুরী, অমিতাভ রেজা এবং পূর্ণিমা

চঞ্চল চৌধুরী, অমিতাভ রেজা এবং পূর্ণিমা

গুণী নির্মাতা অমিতাভ রেজা চৌধুরীর ‘আয়নাবাজি’ সিনেমায় অভিনয় করে বাজিমাৎ করেছিলেন চঞ্চল চৌধুরী। মুক্তির পর সিনেমাটি দেশজুড়ে তুমুল জনপ্রিয়তা লাভ করেছিল। ফের একবার অমিতাভের সিনেমায় চঞ্চল। এবারের সিনেমা অবশ্য প্রেক্ষাগৃহের জন্য নয়। অনলাইন প্ল্যাটফর্মেই মুক্তি পাবে। 

কথাসাহিত্যিক শিবব্রত বর্মনের উপন্যাস ‘মৃতেরাও কথা বলে’ অবলম্বনে নির্মিত হচ্ছে ‘মুন্সিগিরি’ শিরোনামের সিনেমা। এই সিনেমায় চঞ্চলের সঙ্গে অভিনয় করবেন ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় অভিনেত্রী পূর্ণিমা।

ইতোমধ্যে অনলাইন দুনিয়ায় চঞ্চলের অভিষেক হয়েছে। কিছু দিন আগে তার অভিনীত ওয়েব সিরিজ ‘তাকদীর’ ব্যাপক সাড়া পেয়েছিল। এবার ওয়েব ফিল্মে এই গুণী অভিনেতা ফুটিয়ে তুলবেন তার অভিনয়ের কারিশমা।

১৪ জানুয়ারি, বৃহস্পতিবার আনুষ্ঠানিকভাবে ‘মুন্সিগিরি’ সিনেমার ঘোষণা দেয়া হয়েছে। অমিতাভ রেজা জানান, এই সিনেমাটি ফ্র্যাঞ্চাইজি আকারে নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে। অর্থাৎ বলিউডে যেমন ‘ধুম’, টালিউডের ‘ফেলুদা’ কিংবা হলিউডের ‘অ্যাভেঞ্জার্স’ সিরিজের মতো করেই নির্মিত হবে ‘মুন্সিগিরি’।

সিনেমাটি প্রযোজনা করছে নির্মাতা রেদোয়ান রনির প্ল্যাটফর্ম চরকি। জানানো হয়, ‘মুন্সিগিরি’ সিনেমার প্রথম খণ্ডে এক সরকারি কর্মকর্তার মৃত্যু রহস্যের তদন্ত করবেন মাসুদ মুন্সি নামের পুলিশের একজন গোয়েন্দা। এই চরিত্রে থাকছেন চঞ্চল। আর ওই সরকারি কর্মকর্তার স্ত্রী সুরাইয়ার ভূমিকায় থাকবেন পূর্ণিমা।

নতুন এই কাজে যুক্ত হয়ে পূর্ণিমা বলেন, এ রকম নতুন কিছুর জন্যই আমরা অধীর হয়ে বসে থাকি। সব সময়ই চেয়েছি জীবনে নতুন কিছুর যোগ হোক, মানুষ আমাকে নতুন রূপে দেখুক। এ ধরনের গল্প আমার কাছে আগে কখনোই আসেনি। আমার সুযোগ হয়েছে দুটো চরিত্র থেকে একটি বেছে নেয়ার। ফলে কাজটি করতে পারছি ভেবে নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করছি।

চঞ্চল চৌধুরী বলেন, চলচ্চিত্রটির সঙ্গে যুক্ত হতে পেরে আমি খুব খুশি। আমার বিশ্বাস, যে চমৎকার গল্প নিয়ে চরকি কাজটি করছে, বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে আমাদের নিজস্ব গল্প হিসেবে ওয়েবে এটি স্বাতন্ত্র্য কাজ হবে। আশা করছি, দর্শকদের সামনে আরও একটি ভালো চরিত্রে হাজির হতে পারব।

অন্যদিকে নির্মাতা অমিতাভ রেজা চৌধুরী বলেন, এটা নিয়ে আমাদের অনেক স্বপ্ন। বাংলাদেশে আগে নিজেদের গোয়েন্দা গল্প ভিজ্যুয়াল হয়নি, এটাই প্রথম। গত দুই বছর এর জন্যই আমরা অপেক্ষা করে আছি। আমার প্রত্যাশা, প্রথম ছবির পর সিরিজের দ্বিতীয় ছবিটা বানানো।

ডেইলি বাংলাদেশ/টিএএস