চবিতে ভর্তি পরীক্ষা শুরু ১৬ আগস্ট, প্রস্তুত প্রশাসন

চবিতে ভর্তি পরীক্ষা শুরু ১৬ আগস্ট, প্রস্তুত প্রশাসন

চবি প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১২:৩৪ ১৫ আগস্ট ২০২২  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষের প্রথম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) ভর্তি পরীক্ষা শুরু হবে মঙ্গলবার (১৬ আগস্ট)। পরীক্ষা শেষ হবে ২৪ আগস্ট। সুষ্ঠুভাবে ভর্তি পরীক্ষা সম্পন্ন করতে সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়েছে প্রশাসন। রয়েছে পাঁচ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা। 

রোববার (১৪ আগস্ট) দুপুর ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অফিসে সাংবাদিকদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় ভর্তি পরীক্ষার বিভিন্ন তথ্য তুলে ধরেন প্রক্টর ড. রবিউল হাসান ভূঁইয়া। 

সংবাদ সম্মেলনে প্রক্টর জানান, এবারের ভর্তি পরীক্ষায় প্রায় সাত শতাধিক নিরাপত্তাকর্মী মোতায়েন করা হবে। এদের মধ্যে পুলিশ, র্যাব ডিবিসহ বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা নির্ধারিত পোশাক ও সিভিল পোশাকে নিয়োজিত থাকবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের বিএনসিসি, রোভার স্কাউট, ও নিরাপত্তা দফতরের সদস্যরাও সার্বক্ষণিক থাকবেন। এছাড়া প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরাও বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে থাকবেন। 

দূর-দূরান্ত থেকে আগত নারী অভিভাবকদের জন্য চারটি ছাত্রী হলেই বিশ্রামাগার প্রস্তুত করা হয়েছে, শহর থেকে আগত ভর্তিচ্ছুদের জন্য শাটল ট্রেনের আরো চারটি ট্রিপ বাড়ানো হয়েছে, অস্থায়ী বাথরুম ও বিশুদ্ধ পানির ব্যবস্থা করা হয়েছে, ক্যাম্পাসের ভেতর অস্থায়ী খাবারের দোকান বসানো ও পোস্টারিং নিষিদ্ধ করা হয়েছে, সব প্রকার র্যাগিং নিষিদ্ধ করা হয়েছে, মেডিকেল টিম ও এম্বুলেন্স প্রস্তুত রাখা হয়েছে। এছাড়া জায়গায় জায়গায় পর্যাপ্ত পরিমাণ লাইট ও সিসি ক্যামেরা লাগানো হয়েছে। 

এবছরও বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে গাড়ি ভাড়া ও হোটেলগুলোতে অতিরিক্ত টাকা আদায়ের ব্যাপারে কঠিন পদক্ষেপ নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। অতিরিক্ত টাকা আদায় করা হলে সরাসরি প্রক্টর অফিসে অভিযোগ জানাতেও বলা হয়েছে। এছাড়া শহর থেকে ক্যাম্পাস পর্যন্ত প্রতিটি জায়গায় পুলিশ মোতায়েন করা থাকবে, যাতে ভর্তিচ্ছুরা কোনোরকম সমস্যায় না পড়ে।

এবার চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে প্রথম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) ভর্তি পরীক্ষায় চার ইউনিট ও দুই উপ-ইউনিটে ৪ হাজার ৯২৬টি আসনের জন্য চূড়ান্তভাবে আবেদন করেছেন ১ লাখ ৪৩ হাজার ৭২৪ জন শিক্ষার্থী। সে হিসেবে প্রতি আসনের বিপরীতে লড়বেন ২৯জন শিক্ষার্থী।

এর মধ্যে ‘এ’ ইউনিটে সকাল ও বিকাল দুই শিফটে ২৭ হাজার ৫৩ জন করে পরীক্ষা দিবেন মোট ৫৪ হাজার ১০৬ জন, ‘বি’ ইউনিটে সকাল শিফটে ১৭ হাজার ৮৯০ জন ও বিকাল শিফটে ১৭ হাজার ৮৮৯জন করে মোট ৩৫ হাজার ৭৭৯জন, ‘সি’ ইউনিটে সকাল শিফটে ১১ হাজার ৬০জন ও সমন্বিত ‘ডি’ ইউনিটে সকাল ও বিকাল দুই শিফটে ১৯ হাজার ৬৯৬ জন করে মোট ৩৯ হাজার ৩৯২ জন ভর্তিচ্ছু পরীক্ষা দিবেন। এছাড়া উপ-ইউনিট দুটির মধ্যে ‘বি ১’ ইউনিটে পরীক্ষা দিবেন ১ হাজার ৫৭৯ জন ও ‘ডি ১’ ইউনিটে ১ হাজার ৮১১ জন ভর্তিচ্ছু পরীক্ষা দিবেন। 

ভর্তি পরীক্ষার সময়সূচি: 

১৬ আগস্ট দুই শিফটে ‘এ’ ইউনিট, ১৯ আগস্ট ‘সি’ ইউনিট, ২০ আগস্ট ‘বি’ ইউনিট, ২২ আগস্ট ‘ডি’ ইউনিটের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এ ছাড়া ২৪ আগস্ট সকালে উপ-ইউনিট ‘বি-১’ ও একই দিন বিকেলে ‘ডি-১’ ইউনিটের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

প্রবেশপত্র উত্তোলনের শেষ সময়:

চারটি ইউনিট এবং ২ উপ-ইউনিটে ভর্তিচ্ছুরা পরীক্ষা শুরুর ১ ঘণ্টা আগে পর্যন্ত প্রবেশপত্র উত্তোলন করতে পারবেন। তবে প্রবেশপত্র উত্তোলন করতে অসুবিধা হলে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইসিটি সেল থেকে উত্তোলন করতে পারবেন ভর্তিচ্ছুরা। 

উল্লেখ্য যে, ভর্তি পরীক্ষায় এ, বি ও ডি ইউনিটের পরীক্ষা দুই শিফটে অনুষ্ঠিত হবে। প্রতিটি ইউনিটের প্রথম শিফটের পরীক্ষার জন্য সকাল ৯টা ৪৫ মিনিটে কেন্দ্রে প্রবেশ করতে হবে সকাল, ওএমআর ফরম বিতরণ করা হবে ১০টা ১৫ মিনিটে, প্রশ্নপত্র প্রদান করা হবে সকাল ১১টায় এবং পরীক্ষা শেষ হবে দুপুর ১২টায়। দ্বিতীয় শিফটের পরীক্ষার জন্য কেন্দ্রে প্রবেশ করতে হবে দুপুর ২টা ১৫ মিনিটে,  ওএমআর ফরম বিতরণ করা হবে ২টা ৪৫ মিনিটে, প্রশ্নপত্র প্রদান করা হবে ৩টা ৩০ মিনিটে এবং পরীক্ষা শেষ হবে বিকাল ৪টা ৩০ মিনিটে। তবে, ‘ডি ১’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় কেন্দ্রে প্রবেশ করতে হবে দুপুর ১টা ৪৫ মিনিটে, ওএমআর বিতরণ করা হবে ২টা ১৫ মিনিটে, প্রশ্নপত্র দেওয়া হবে ৩টায় এবং পরীক্ষা শেষ হবে বিকাল ৪টায়। 

চবির ভর্তি পরীক্ষার প্রস্তুতি নিয়ে প্রক্টর অধ্যাপক ড. রবিউল হাসান ভূঁইয়া বলেন, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তাকে পাঁচ স্তরে সাজানো হয়েছে, যাতে আগতরা বিশ্ববিদ্যালয়ে এসে কোনোরকম সমস্যায় না পড়েন এবং নিরাপদে বাড়ি ফিরে যেতে পারেন। পাশাপাশি যাতায়াতের জন্য শাটল ট্রেনের ট্রিপ বাড়ানো হয়েছে, নারী অভিভাবকদের জন্য চারটি ছাত্রী হলেই বিশ্রামাগার প্রস্তুত করা হয়েছে, বিশুদ্ধ পানি ও পর্যাপ্ত টয়লেটের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এছাড়াও, যেকোনো সমস্যায় প্রক্টরিয়াল বডি সবসময় প্রস্তুত রয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/কেবি