পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ সাপেক্ষে বিশ্ববিদ্যালয় খোলার সিদ্ধান্ত: হাবিপ্রবি ভিসি

পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ সাপেক্ষে বিশ্ববিদ্যালয় খোলার সিদ্ধান্ত: হাবিপ্রবি ভিসি

হাবিপ্রবি প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৭:৩১ ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১   আপডেট: ১৭:৩৬ ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১

হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) প্রশাসনিক ভবনের পাশে নির্মাণাধীন ১০ তলা একাডেমিক ভবন।

হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) প্রশাসনিক ভবনের পাশে নির্মাণাধীন ১০ তলা একাডেমিক ভবন।

হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) ভিসি অধ্যাপক ড. এম কামরুজ্জামান বলেছেন, আমরা করোনা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করবো। পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলে বিশ্ববিদ্যালয় খোলার বিষয়ে একাডেমিক কাউন্সিল বা রিজেন্ট বোর্ডের সদস্যদের সঙ্গে আলোচনাক্রমে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

তিনি বলেন, প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান খুলেছে। আমরা এ বিষয়ে পর্যবেক্ষণ করছি। তবে করোনায় শিক্ষার্থীদের যে ক্ষতি হয়েছে তা কমিয়ে আনতে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের সহযোগিতায় একটি রিকভারি গাইডলাইন তৈরি করা হয়েছে। রিকভারি গাইডলাইন বিবেচনায় নিয়ে বিদ্যমান সেমিস্টার সিস্টেমকে করোনাকালীন সময়ের জন্য পুনর্বিন্যাস করে কিভাবে শিক্ষার্থীদের ক্ষতি কমিয়ে আনা যায় তার নীতিমালা প্রণয়নের জন্য একটি কমিটি করে দিয়েছি। কমিটির প্রতিবেদনের আলোকে একাডেমিক কাউন্সিলের সুপারিশের প্রেক্ষিতে রিজেন্ট বোর্ডের অনুমোদন নিয়ে আমরা সেশনজট নিরসনে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে সমর্থ হবো বলে আশা করছি।

অধ্যাপক ড. এম কামরুজ্জামান আরো জানান, এখন স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পরীক্ষা অনলাইনে চলমান রয়েছে। সশরীরে পরীক্ষা কার্যক্রম শুরু করতে হলে তা অবশ্যই পর্যায়ক্রমে হবে।

এদিকে বিজ্ঞান অনুষদের শিক্ষার্থী মো. মাসুদ রানা বলেন, অনলাইন পরীক্ষা চালু হওয়ায় সেশনজট কিছুটা হলেও কমে আসবে। তবে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে এখন একটাই চাওয়া ক্রেডিট ফি কমিয়ে একাডেমিক রোডম্যাপ দ্রুত প্রকাশ ও বাস্তবায়নের কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা। এতে করে করোনা মহামারিতে যে শিক্ষার্থীদের ক্ষতি হয়েছে তা অনেকাংশে কমে আসবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম