বিসিএস প্রস্তুতি জানালেন শিক্ষা ক্যাডারে ৩য় সুশান্ত মজুমদার

বিসিএস প্রস্তুতি জানালেন শিক্ষা ক্যাডারে ৩য় সুশান্ত মজুমদার

শফিকুল ইসলাম ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৩:৫৯ ৯ সেপ্টেম্বর ২০২১  

সুশান্ত মুজমদার (শান্ত)

সুশান্ত মুজমদার (শান্ত)

জীবনের প্রথম বিসিএস পরীক্ষায় শিক্ষা ক‍্যাডারে তৃতীয় স্থান অর্জন করে সাফল্য দেখিয়েছেন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সুশান্ত মুজমদার (শান্ত)। এর আগে কর্মরত ছিলেন বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর উপ-পুলিশ পরিদর্শক হিসেবে। ৩৮তম বিসিএসের চূড়ান্ত ফলাফলে শিক্ষা ক্যাডারে হয়েছেন তৃতীয়। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা বিভাগের ১ম ব্যাচের শিক্ষার্থী। 

কিভাবে জীবনের প্রথম বিসিএসে সাফল্য পেয়েছেন, আর কিভাবেই বা নিতে হবে বিসিএস প্রস্তুতি সেসব আদ্যোপান্ত। 

জীবনের লক্ষ্য ঠিক করুন

প্রস্তুতির সময় বারবার ভাবতাম সিভিল সার্ভিসে আমাকে জয়েন করতে হবে। ছোটবেলা থেকেই ‘জীবনের লক্ষ্য’ নিয়ে রচনা লিখে আসছি। সেখানে কেউ কেউ ইঞ্জিনিয়ার কেউ ডাক্তার কেউ শিক্ষক হতে চেয়েছি। আসলে সেসময় জীবনের লক্ষ্য নিয়ে বোঝার মতো জ্ঞান আমাদের ছিলো না। এমনকি বিশ্ববিদ্যালযয়ে প্রথম দিকে দ্বিধাগ্রস্থ ছিলাম। কোন প্রফেশনটা আমার জন্য উপযুক্ত। একটা পর্যায়ে ঠিক করলাম আমার ভবিষ্যৎ ঠিকানা এবং সেই ঠিকানায় পৌঁছানোর জন্য শুরু কর্মপরিকল্পনা আর সেই পরিকল্পনা আমাকে এই পর্যন্ত আসতে সাহায্য করেছে। 

প্রস্তুতি যখন থেকে শুরু করবেন

যারা সিভিল সার্ভিসে জব করার স্বপ্ন দেখেন তাদের অবশ্যই পরিশ্রমী ধৈর্যশীল হতে হবে। আর বিশ্বাস রাখতে হবে পারবো। এই বিশ্বাসই তাকে এগিয়ে নিয়ে যাবে স্বপ্নের দিকে। একজন পরিশ্রমী ধৈর্যশীল এবং বিশ্বাসী লোক অবশ্যই সিভিল সার্ভিসে আসার যোগ্যতা রাখে।

প্রস্তুতি কখন থেকে শুরু করবেন এটা একটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। অনার্স তৃতীয় বর্ষ থেকেই প্রস্তুতি শুরু করতে হবে। এটা বুদ্ধিমানের কাজ। তবে এখানে খেয়াল রাখতে হবে তাতে যেন আপনার অনার্সের রেজাল্ট এর কোনো প্রভাব না পড়ে। দিন দিন সরকারি চাকরি যেন সোনার হরিণ হয়ে যাচ্ছে। সেখানে সিভিল সার্ভিসের প্রতিযোগিতা কেমন হবে তা আপনারা অনুমান করতে পারছেন।

প্রিলি ও রিটেনের সিলেবাসের মিল খুঁজুন

আপনারা অনেকেই জানেন প্রিলিমিনারি পরীক্ষার রেজাল্ট আপনার ক্যাডার পাওয়ার ক্ষেত্রে কোনো হেল্প করবে না অর্থাৎ এটি শুধু রিটেনে বসার অনুমতি দিবে। তাই প্রস্তুতির শুরুতেই আপনাকে প্রিলি প্লাস রিটেন এর সিলেবাসের মিল খুঁজে বের করতে হবে। যেখানে মিল পাবেন সেই জায়গাটা রিটেন বেইজড পড়া উত্তম বলে আমি মনে করি।
আপনাকে পত্রিকা পড়ার অভ্যাস তৈরি করতে হবে অপ্রয়োজনীয় আড্ডা ফেসবুকিং যে আপনার মূল্যবান সময় নষ্ট করে তা এড়িয়ে চলুন।

কোশ্চেন প্যাটার্ন বোঝা

অনার্স যাদের শেষ তাদের জন্য আমরা একটা পরামর্শ হলো কারো কাছ থেকে একটা গাইডলাইন নিয়ে বিসিএস এর সিলেবাসটা বিগত কোশ্চেন প্যাটার্ন বোঝার চেষ্টা করুন এবং একটি পরিকল্পনা গ্রহণ করুন কিভাবে এই সিলেবাসটা শেষ করবেন।

বোর্ড বইগুলো সিলেবাসের আলোকে পড়া

বিসিএস প্রিলিমিনারি মূলত আপনার বেসিক সম্পর্কে বেসিক সম্পর্কে জাজ করে। তাই প্রস্তুতির শুরুতে আপনি সিলেবাস অনুযায়ী বেসিক নলেজ পাবেন। এক্ষেত্রে আপনার প্রধান সাহায্যকারী হিসেবে কাজ করবে অষ্টম, নবম- দশম এবং একাদশ শ্রেণির বোর্ড বইগুলো। আপনি বোর্ড বই গুলো সিলেবাস অনুযায়ী শেষ করে বাজারে যে কোন একটা সিরিজের বই দেখতে পারেন। যেটা আপনার প্রস্তুতিকে পরিপূর্ণতা দান করবে।

জীবনের জন্য চাকরি, চাকরি জন্য জীবন নয়

আমার পড়াশোনার সবকিছুই ছিল বিসিএস কেন্দ্রিক। স্বপ্ন দেখতাম শুধু বিসিএসকে নিয়ে। তাই বোধহয় আজকে সফল হয়েছি। তবে হ্যা, একটা কথা অবশ্যই মনে রাখবেন, জীবনের জন্য চাকরি, চাকরি জন্য জীবন নয়। দিন শেষে বিসিএস শুধুমাত্র একটা চাকরির। তাই এটাও স্মরণ রাখতে হবে বিসিএস সবার হবে না তবে তারা হতাশ হবেন না। সৃষ্টিকর্তা আপনার জন্য অনেক জায়গায় অবশ্যই ভালো কিছু লিখে রেখেছেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম