যে জেলায় প্রথম মৃত্যুদণ্ড পেলেন খুনি

যে জেলায় প্রথম মৃত্যুদণ্ড পেলেন খুনি

বান্দরবান প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ০৯:৫০ ৫ আগস্ট ২০২২  

দণ্ডিতদের কারাগারে পাঠায় আদালত

দণ্ডিতদের কারাগারে পাঠায় আদালত

বান্দরবানে শিক্ষক হত্যা মামলায় একজনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে আদালত। একই সঙ্গে তাকে এক লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো তিন বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়। তবে এ জেলায় এটিই প্রথম মৃত্যুদণ্ড।

বৃহস্পতিবার বিকেলে বান্দরবান জেলা অতিরিক্ত দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আবু হানিফ এ রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডিতের নাম হ্লাসিং মং মারমা। তিনি রুমা উপজেলার পাইন্দু ইউনিয়নের বাসিন্দা ক্যঅং প্রু মারমার ছেলে। রায় ঘোষণা সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন তিনি।

আদালতের প্রশাসনিক কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মো. কামরুল হাসান জানান, বান্দরবান আদালতে খুনের অপরাধে সাজা হিসেবে এবারই প্রথম কোনো আসামিকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হলো।

মামলার বিবরণ দিয়ে আদালতে অতিরিক্ত পিপি তপন দাশ জানান, ২০১৭ সালের ২৬ জুলাই পাইন্দু ইউনিয়নের উজানী পাড়ায় বাড়ির পাশে একটি জুমক্ষেত থেকে নুশৈমং মারমার গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। তিনি একই এলাকার ক্যঅং প্রু মারমার ছেলে। এ ঘটনায় পরদিন চারজনের বিরুদ্ধে একটি মামলা করেন নিহতের বড় ভাই মংরে অং মারমা। একই দিন একটি হত্যা মামলা করে পুলিশ।

এছাড়া এ ঘটনায় মংসাইহ্লা মারমা, হ্লাসিং মং মার্মা ও ক্যংঅংপ্রু মার্মাকে গ্রেফতার করা হয়। এর মধ্যে নিজের দোষ স্বীকার করে জবানবন্দি দেন হ্লাসিং মং মারমা। পরে হ্লাসিংয়ের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মো. শরিফুল ইসলাম। দীর্ঘ শুনানি শেষে বৃহস্পতিবার এ রায় দেয় আদালত।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর