দেশে ফিরেই তরুণীর ‘বিদেশি’ চলাফেরা, অন্তরঙ্গ মুহূর্তে ধরল পুলিশ

দেশে ফিরেই তরুণীর ‘বিদেশি’ চলাফেরা, অন্তরঙ্গ মুহূর্তে ধরল পুলিশ

জয়পুরহাট প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১০:১৬ ৫ ডিসেম্বর ২০২১  

মৌসুমি ও তোরাব

মৌসুমি ও তোরাব

মৌসুমি সুলতানা। বয়স ২৪ বছর। দীর্ঘদিন ছিলেন মালয়েশিয়ায়। তবে দেশে ফেরার পর আর আগের রূপ ছিল না তার। গ্রামে ফিরলেও চলাফেরা করতেন বিদেশি স্টাইলে। বিভিন্ন বয়সী ছেলেদের সঙ্গে করতেন অনৈতিক কাজ। জড়িয়ে পড়েন মাদকের সঙ্গেও। মেয়ের এসব চলাফেরায় অতিষ্ঠ হয়ে ওঠেন বাবা-মা। দ্বারস্থ হতে হয় থানায়। তবে মেয়েকে ধরতে এলে পুলিশ পেয়েছে অন্তরঙ্গ মুহূর্তে। শেষে যুবকসহ মেয়েকে ধরে পুলিশ।

ঘটনাটি জয়পুরহাটের ক্ষেতলালের। শুক্রবার রাতে উপজেলার মামুদপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ তাউসারা বেলতা বানদিঘি গ্রাম থেকে মৌসুমিসহ তোরাব উদ্দিন মণ্ডলকে আটক করে পুলিশ।

মৌসুমি দক্ষিণ তাউসারা বেলতা বানদিঘি গ্রামের সুলতান শাহর মেয়ে। তোরাব উদ্দিন মণ্ডল একই উপজেলার বারোইল নয়াপাড়া গ্রামের মেহের আলী মণ্ডলের ছেলে।

জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে মালয়েশিয়ায় ছিলেন মৌসুমি। নভেম্বরে দেশে ফেরেন তিনি। বাড়িতে আসার পর থেকে বিদেশি স্টাইলে বেপরোয়া চলাফেরা ও অনৈতিক কাজে জড়িয়ে পড়েন। এছাড়া তিনি এলাকার বিভিন্ন বয়সী ছেলেদের সঙ্গে অসামাজিক কার্যকলাপে লিপ্ত হন। এক সময় মাদকের সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন। তাকে বারবার নিষেধ করলে সহযোগীদের নিয়ে মা-বাবাকে মারধর করেন। এতে অতিষ্ঠ হয়ে থানায় অভিযোগ করেন তার বাবা।

পরে শুক্রবার রাতে অভিযান চালিয়ে নিজ বাড়ি থেকে একটি পালসার মোটরসাইকেলসহ তোরাব উদ্দিন মণ্ডলের সঙ্গে অন্তরঙ্গ মুহূর্তে মৌসুমিকে আটক করে পুলিশ। যদিও বিদেশ থেকে ফেরার পর তোরাব উদ্দিন মণ্ডলকে গোপনে বিয়ে করেছেন বলে দাবি মৌসুমির।

ক্ষেতলাল থানার ওসি (তদন্ত) শাহ আলম বলেন, মেয়ের বাবার অভিযোগের ভিত্তিতে নিজ বাড়ি থেকে তাদের দুজনকে হাতেনাতে আটক করা হয়েছে। বিয়ের বৈধ প্রমাণ না থাকায় তাদের পেনাল কোডে মামলা দিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর