ধর্ষণে বাধা দিলেই মারতো ভাই, চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা বোন

ধর্ষণে বাধা দিলেই মারতো ভাই, চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা বোন

সাটুরিয়া (মানিকগঞ্জ) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৫:৪৬ ১১ সেপ্টেম্বর ২০২১  

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

মানিকগঞ্জের সাটুরিয়ায় সৎ ভাইয়ের ধর্ষণে চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছেন ১৪ বছর বয়সী বোন। এ নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে।

এ ঘটনায় শনিবার সকালে অভিযুক্ত ভাইকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। উপজেলার দিঘলিয়া ইউনিয়নের জালশুকা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগী কিশোরী ও অভিযুক্ত ভাই একই বাবার সন্তান। তবে তাদের মা আলাদা।

ভুক্তভোগী কিশোরী জানান, এক বছরের বেশি সময় ধরে তাকে ধর্ষণ করছেন সৎ ভাই। এতে বাধা দিলে করতেন মারধর। বিষয়টি মাকে জানালেও কোনো লাভ হয়নি। তার ভাই পেশায় মিষ্টি দোকানের কর্মচারী।

কিশোরীর মা জানান, মেয়ের শারীরিক পরিবর্তন দেখে ডাক্তারের কাছে নেয়া হয়। এরপর পরীক্ষা করলে চার মাসের অন্তঃসত্ত্বার বিষয়টি ধরা পড়ে। বিষয়টি স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিরা মীমাংসা করে দেবেন বলে জানিয়েছেন ভুক্তভোগী কিশোরীর বাবা।

সাটুরিয়া থানার ওসি মুহাম্মাদ আশরাফুল আলম বলেন, জালশুকা গ্রামের এক ব্যক্তির প্রথম স্ত্রীর ছেলে তার দ্বিতীয় স্ত্রীর মেয়েকে দীর্ঘদিন ধরে ধর্ষণ করছিল। এতে চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে ভুক্তভোগী কিশোরী।

বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে আমাদের নজরে আসে। ভুক্তভোগীকে উদ্ধার করে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় সৎ ছেলের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেন কিশোরীর মা। পরে অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়।

ভুক্তভোগী কিশোরী চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সাটুরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মো. মামুন-অর-রশিদ।

তিনি জানান, গর্ভের সন্তান নষ্ট করার জন্য নানা ধরনের ওষুধ সেবন করানোয় ভুক্তভোগীর শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটে। ফলে তাকে মানিকগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর