পরিবেশ সুরক্ষায় দুই ভাইয়ের ব্যতিক্রমী উদ্যোগ

পরিবেশ সুরক্ষায় দুই ভাইয়ের ব্যতিক্রমী উদ্যোগ

পাথরঘাটা (বরগুনা) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২০:২০ ২১ জুলাই ২০২১  

পরিবেশ সুরক্ষায় দুই ভাইয়ের ব্যতিক্রমী উদ্যোগ

পরিবেশ সুরক্ষায় দুই ভাইয়ের ব্যতিক্রমী উদ্যোগ

সকাল থেকেই পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে সবার মাঝে ব্যস্ততা। কেউ নামাজ পড়ছেন কেউ পশু জবাই করছেন।

ঈদুল আজহার নামাজ শেষে প্রতিটি ঘরে ঘরেই পশু কোরবানি দেওয়ার কর্মযজ্ঞ। যার যার ঘরে বা বাড়িতে বসে কোরবানির পশু জবাই থেকে শুরু করে আনুষাঙ্গিক কাজে ব্যস্ততা সবার। কারো যেন কথা বলার সময় নেই। ঠিক এমন সময় দুই ভাইয়ের ব্যতিক্রমী উদ্যোগ দেখা গেছে।

পাড়া মহল্লায় কোরবানির পশু জবাই করায় বর্জ্য এবং রক্তের কারণে যাতে পরিবেশ দূষিত না হয় এবং দুর্গন্ধ না ছড়ায় তার জন্য ব্লিসিন পাউডার ও বর্জ্য অপসারণের জন্য পাথরঘাটা পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর রফিকুল ইসলাম কাকন ও তার ভাই পরিবেশ কর্মী সাংবাদিক শফিকুল ইসলাম খোকন পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন এবং পরিবেশ সুরক্ষায় কাজ করেন। নিজেদের বাড়ির কোরবানির কাজ ফেলে রেখে সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত কোরবানির পশুর বর্জ্য সরানো এবং পাড়া মহল্লায় দুর্গন্ধ থেকে মুক্তির জন্য ব্লিসিন পাউডার দিচ্ছে। এমন কাজকে ভালোভাবেই দেখছেন এখানকার সচেতন মহল।

কোরবানি: পরিবেশ সুরক্ষায় দুই ভাইয়ের ব্যতিক্রমী উদ্যোগ

এর আগেও তারা অপরিষ্কার ড্রেন নিজেরা পরিষ্কার করা, মশা নিধনের জন্য ফগার মেশিন দিয়ে নিজেদের উদ্যোগে এলাকায় ছিটানোসহ নানা শেষ সেবামূলক কার্যক্রম করে আসছেন। অনেক এলাকায় বেশ সুনাম অর্জন করেছেন তারা।

পাথরঘাটা কলেজের শিক্ষক মো. হাবিবুর রহমান ও জাইদুর রহমান বলেন, কুরবানীর পশুর বর্জ্যের কারণে এবং দুর্গন্ধে পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে। আমাদের সমাজে এখনো পশু জবাই করে বর্জ্য না সরিয়ে ফেলে রেখে যায়, যার কারণে দুর্গন্ধে এলাকার মানুষ চলাচলে বিঘ্ন ঘটে। কাউন্সিলের এমন উদ্যোগ প্রশংসনীয়। বিগত দিনে এমন কাজ দেখা যায়নি। তারা আঙ্গুল দিয়ে আমাদের দেখিয়ে দিয়েছেন চলে এসব কাজ নিজেদের করা উচিত। 

স্থানীয় বাসিন্দা এম.এ সালাম আজাদ ও কাশেম রাসেল বলেন, আমরাও তাদের সঙ্গে থেকে সহযোগিতা করেছি। আসলেই দুই ভাইয়ের কাজগুলো আমাদের মুগ্ধ করেছে। কোরবানির দিন নিজেদের কাজ ফেলে রেখে মানুষের কাজ করছেন।

পাথরঘাটা পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর রফিকুল ইসলাম কাকন বলেন, এটা আমাদের কাজের ধারাবাহিক অংশের। পরিবেশ যাতে দূষিত না হয় সেজন্য আমার ব্যক্তিগত তরফ থেকে এরই মধ্যে যেসব জায়গায় গরু জবাই দেয়া হয়েছে ওইসব জায়গায় ব্লিচিং পাউডার দেয়া শুরু করেছি। এছাড়াও মানুষকে সচেতন করছি যারা কুরবানি দিয়েছেন নিজের উদ্যোগে গরু জবাই করার জায়গায় পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলার জন্য।

বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলনের (বাপা) পাথরঘাটা উপজেলার সমন্বয়ক সাংবাদিক শফিকুল ইসলাম খোকন বলেন, বিগত দিনে আমরা পরিবেশ সুরক্ষার জন্য অনেক কাজ করেছি। ঈদুল আজহার দিনে পশুর বর্জের কারণে পুরো সপ্তাহ খানিক দুর্গন্ধে এলাকার মানুষ চলাচল করতে পারে না। এ কথা বিবেচনা করে আমরা সকাল থেকেই বর্জ্য অপসারণের কাজ করেছি। এটি মানুষ ভালোভাবে দেখলো না খারাপ ভাবে দেখলাম সেটাই দেখার বিষয় নয় কিন্তু আমরা দুর্গন্ধ যাতে না আসে সেজন্য কাজ করেছি।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে