লাল চুড়ি-লিপস্টিকের বায়না, না পেয়ে ফাঁসিতে ঝুলল ছোট্ট শিশু

লাল চুড়ি-লিপস্টিকের বায়না, না পেয়ে ফাঁসিতে ঝুলল ছোট্ট শিশু

মধুখালী (ফরিদপুর) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ০৯:৪১ ৭ মে ২০২১  

লাশ সামনে রেখে স্বজনদের আহাজারি

লাশ সামনে রেখে স্বজনদের আহাজারি

শখ ছিল এবারের ঈদে লাল চুড়ি, লাল ফিতা, লাল লিপস্টিক আর লাল রঙের জামা পরে বান্ধবীদের সঙ্গে ঘুরতে যাবে। মায়ের সঙ্গে যাবে নানাবাড়ি। কিন্তু সেই শখ অপূর্ণই রয়ে গেল। ইচ্ছা থাকলেও আদরের মেয়েটির চাহিদা পূরণ করতে পারলেন না দিনমজুর বাবা। তাই বেঁচে থাকারও স্বপ্ন ভুলে যায় শিশুটি। বেছে নিয়েছিল আত্মহত্যার পথ।

বাবা-মায়ের সঙ্গে অভিমান করে আত্মহত্যা করে আট বছরের শিশু বীথি সুলতানা। বৃহস্পতিবার দুপুরে ঘটনাটি ঘটেছে ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলার বাগাট ইউনিয়নের গোয়ালপাড়া গ্রামে। বীথি একই গ্রামের দিনমজুর সমির শেখের মেয়ে।

স্থানীয়রা জানায়, কয়েকদিন ধরেই বীথি বায়না ধরেছিল ঈদের দিনে পরার জন্য লাল জামা, লাল ফিতা, লাল চুড়ি ও লাল লিপস্টিক কিনে দিতে হবে। কিন্তু তার বাবা মানুষের বাড়িতে কাজ করেন আর মা স্থানীয় একটি জুট মিলের শ্রমিক। হাতে টাকা না থাকায় জুট মিল থেকে বেতন পেয়ে কিনে দেবেন বলে জানিয়েছিলেন মা। কিন্তু সে পর্যন্ত দেরি সহ্য হয়নি বীথির। বৃহস্পতিবার দুপুরে সবার অজান্তে ঘরের আড়ার সঙ্গে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে সে।

শিশুটির মা আসমা বেগম কান্নাজড়িত কন্ঠে বলেন, ‘ঈদের দিন লাল চুড়ি, ফিতা পরবে বলে আমার কাছে আবদার করেছিল। আমি বলেছিলাম মারে আমি বেতন পেলে তোকে ঈদের আগেই সবকিছু কিনে দেব। কিন্তু মেয়ে আমার অভিমান করে আত্মহত্যা করবে ভাবতে পারিনি।’

মধুখালী থানার ওসি (তদন্ত) রথিন্দ্রনাথ তরফদার বলেন, বিষয়টি খুবই মর্মান্তিক। মানবিক দিক বিবেচনা করে ময়নাতদন্ত ছাড়াই শিশুটির দাফনের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর