পোশাককর্মীর মৃত্যু নিয়ে রহস্যের ধূম্রজাল, স্বামী পলাতক

পোশাককর্মীর মৃত্যু নিয়ে রহস্যের ধূম্রজাল, স্বামী পলাতক

নেত্রকোনা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ০০:৩৮ ৮ এপ্রিল ২০২১  

লাশ -ফাইল ছবি

লাশ -ফাইল ছবি

নেত্রকোনার কেন্দুয়ায় সেতু আক্তার নামে এক পোশাককর্মীর মৃত্যু নিয়ে রহস্যের ধূম্রজাল সৃষ্টি হয়েছে। এ ঘটনার পর এলাকা ছেড়ে পালিয়েছেন নিহতের স্বামী।

বুধবার দুপুরে উপজেলার সান্দিকোনা ইউনিয়নের স্বল্প মাইজহাটি গ্রামের স্বামীর বাড়ি থেকে সেতুর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত সেতু একই গ্রামের আব্দুল হাইয়ের ছেলে ফরিদ মিয়া ওরফে টমাসের স্ত্রী।

স্থানীয়রা জানায়, চট্টগ্রামে একটি পোশাক কারখানায় কাজ করতেন সেতু। নয় মাস আগে তার সঙ্গে ফরিদের বিয়ে হয়। বিয়ের পর স্বামী-স্ত্রীর দ্বন্দ্ব লেগেই থাকতো। এরই জেরে তিন মাস আগে স্ত্রীকে চট্টগ্রামে রেখে আসেন ফরিদ। তিনদিন আগে বাবার বাড়ি কেন্দুয়া উপজেলার রোয়াইলবাড়ি গ্রামে আসেন সেতু। খবর পেয়ে পরদিন শ্বশুরবাড়ি থেকে স্ত্রীকে নিজ বাড়িতে নিয়ে যান ফরিদ। ওইদিন রাতেই অসুস্থ হলে সেতুকে ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

এদিকে, সেতুর মৃত্যু নিয়ে সন্দেহ হলে পুলিশে খবর দেন বাবার বাড়ির লোকজন। পরে ঘটনাস্থলে যান সিনিয়র এএসপি (কেন্দুয়া সার্কেল) জোনাইদ আফ্রাদ ও কেন্দুয়া থানার ওসি (তদন্ত) হাবিবুল্লাহ খান। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যান সেতুর স্বামী ফরিদ মিয়া। পরে লাশ উদ্ধার করে নেত্রকোনা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়।

কেন্দুয়া থানার ওসি (তদন্ত) হাবিবুল্লাহ খান বলেন, ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর আসল কারণ জানা যাবে। তবে এখনো কেউ লিখিত অভিযোগ দেননি।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর