সোনারগাঁয়ে রিসোর্টে হেফাজতের হামলা, তিন মামলায় আসামি ৭০০

সোনারগাঁয়ে রিসোর্টে হেফাজতের হামলা, তিন মামলায় আসামি ৭০০

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২২:৩৯ ৭ এপ্রিল ২০২১   আপডেট: ১৩:৫৩ ৮ এপ্রিল ২০২১

হেফাজতের উত্তেজিত কর্মী-সমর্থকরা লাঠিসোটা হাতে রিসোর্টে ভাঙচুর চালায়

হেফাজতের উত্তেজিত কর্মী-সমর্থকরা লাঠিসোটা হাতে রিসোর্টে ভাঙচুর চালায়

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে রিসোর্টে হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীদের সহিংসতার ঘটনায় তিনটি মামলা হয়েছে। একটি মামলায় মামুনুল হককে প্রধান আসামি করা হয়েছে। গ্রেফতার হয়েছেন হেফাজতের এক নেতা।

বুধবার (৭ এপ্রিল) বিকেলে নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার (এসপি) জায়েদুল আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, সোনারগাঁ থানা পুলিশ বাদী হয়ে দুটি এবং স্থানীয় সাংবাদিক হাবিবুর রহমান আরেকটি মামলা করেন। তিন মামলায় ১০০ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাত আরো ৫০০ থেকে ৬০০ জনকে আসামি করা হয়েছে।

এসপি জায়েদুল আলম বলেন, সোনারগাঁ রয়েল রিসোর্টে গত ৩ এপ্রিল বিকেলে হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হককে স্থানীয়রা অবরুদ্ধ করে রাখে। এ ঘটনায় স্থানীয় হেফাজত নেতাকর্মীরা হামলা, ভাঙচুর, মহাসড়কে অগ্নিসংযোগ ও এক সাংবাদিককে মারধর করে। এ ঘটনায় সোনারগাঁ থানায় পৃথক তিনটি মামলা হয়েছে। যার মধ্যে দুটি মামলার বাদী পুলিশ ও আরেকটি মামলায় বাদী আহত সাংবাদিক।

সোনারগাঁ থানার পরিদর্শক তবিদুর রহমান বলেন, পুলিশের কাজে বাধা, হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় সোনারগাঁ থানার এসআই ইয়াউর রহমান বাদী হয়ে মামুনুল হককে প্রধান আসামি করে ৪১ জনের নাম উল্লেখ করে একটি এবং সন্ত্রাস বিরোধী আইনে এসআই আরিফ হাওলাদার বাদী হয়ে মামুনুল হককে আসামি করে ৪২ জনের নাম উল্লেখ করে আরো একটি মামলা করেছেন। দুই মামলায় ৫০০ থেকে ৬০০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে।

এছাড়া সাংবাদিক হাবিবুর রহমানের ওপর হামলা ও বাড়িঘর ভাঙচুরের ঘটনায় ওই সাংবাদিক বাদী হয়ে ১৭ জনের নাম উল্লেখ করে ও ৭০ থেকে ৮০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে আরো একটি মামলা করেছেন বলে জানান তিনি।

ওসি বলেন, মোস্তফা নামে একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাকে বুধবার বিকেলে সাতদিনের রিমান্ড আবেদন করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম/এইচএন